ভা’ইরাস’রোধী কাপড় তৈরি করে বিশ্বকে তাক লাগিয়ে দিয়েছে – OnlineCityNews

ভা’ইরাস’রোধী কাপড় তৈরি করে বিশ্বকে তাক লাগিয়ে দিয়েছে

প্রাণঘা’তী করো’নাভা’ইরাসকে নি’র্মূল করার জন্য সারা বিশ্ব যখন প্রতিষে”ধক আ’বিষ্কার করতে গিয়ে হি’মশিম খাচ্ছে, ঠিক সেই সময় ক’রোনাভাই’রাস প্রতিরো’ধক কাপড় তৈরি করে বিশ্বকে তাক তাক লাগি’য়ে দিয়েছে দেশের বস্ত্র খা’তের শীর্ষ প্রতিষ্ঠান জাবের অ্যান্ড জু’বায়ের।

আগামী’কাল (১৪ এপ্রিল) রাজধানীতে এক সংবাদ স’ম্মেল’নের মাধ্যমে এই কাপড় উদ্ভাবনের বি’ষয়টি আনুষ্ঠানি’কভাবে জানানো হবে। উদ্বো’ধনের পর সরকারের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের স’ঙ্গে আলোচনা শুরু করবে প্রতি’ষ্ঠানটি। দেশের প্রয়ো’জনে সরকার এই কাপড় ব্যব’হার করতে চাইলে স’রবরাহ করতে চা’য় তারা।

মঙ্গলবার (১২ মে) নো’মান গ্রুপে’র সি’স্টার ক’নসার্ন জাবের অ্যা’ন্ড জু’বা’য়েরের ঊ’র্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ গণমা’ধ্যম’কে জানান, এই কাপড় তৈরিতে ব্যব’হার করা হয়েছে বিশেষ রাসায়নিক পদার্থ। ফলে ওই কাপড়ে ক’রোনাভাই’রাস’সহ অন্য কোনো ভা’ইরা’স টিক’তে পারবে না। যদি কোনো’ভাবে কোনো ভা’ইরা’স ওই কাপড়ে লাগে, মাত্র ১২০ সেকে’ন্ডে ওই কাপড় ৯৯.৯ শতাংশ ভাই’রাসমু’ক্ত হবে।

তারা আরও জানায়, বস্ত্র খা’তে প্রতিযোগী দে’শগুলোর মধ্যে বাংলা’দেশেই প্রথম এই কাপড় উ’দ্ভাবিত হয়েছে। অদূর ভবি’ষ্যতে অন্য দেশ’গুলোও এই কাপড় তৈরিতে এগিয়ে আসবে বলে তারা আ’শাবাদী।

প্রতিষ্ঠা’নটির ব্র্যান্ড অ্যা’ন্ড কমি’উনিকে’শন ম্যানে’জার অনল রায়হান বলেন, সাধারণ সব ধরনের পোশাক তৈরিতে ভা’ইরা’স প্রতি’রো’ধক এই কাপড় ব্যব’হার করা যাবে। তবে বিশে’ষা’য়িত কাপড় হও’য়ায় এই কাপড়ে তৈরি পো’শাকের দাম তুল’নামূলক বেশি হবে। জাবের অ্যান্ড জুবা’য়ের র’প্তানির জন্য এ কাপড় তৈরি করেছে বলে জানান এ কর্মক’র্তা।

এরই মধ্যে তাদের এই কাপড় আন্ত’র্জাতি’কভাবে মান সনদের স্বীকৃতি পে’য়েছে। আইএসও ১৮১৮৪-এর অধীনে এটি পরী’ক্ষা করা হয়েছে। কাপড় তৈরির মূল উ’পাদা’নগুলো যুক্ত’রাষ্ট্রের বিষা’ক্ত পদার্থ নি’য়ন্ত্রণ আইন ও পরি’বেশগত সুরক্ষা সংস্থায় নিব’ন্ধিত।

ভা’ইরা’স রোধে এ কাপড় প্রা’য় শত’ভাগ নিরা’পত্তা দিলেও ২০ বার ধো’য়ার পর এর কার্যকা’রিতা কত’খানি থাকবে, তা নিয়ে রয়েছে অনি’শ্চয়’তা। তার পরও এই কাপড় নেওয়ার ব্যাপারে ই’উরোপ-আমে’রিকার ক্রেতা’দের কাছ থেকে বিপুল সাড়া পা’ওয়া যাচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *