Breaking News
Home / সারা দেশ / মায়ের ম’রদে’হের পাশে নিশ্চু’প দাঁড়িয়ে ছিল শি’শুটি

মায়ের ম’রদে’হের পাশে নিশ্চু’প দাঁড়িয়ে ছিল শি’শুটি

Advertisement

ব্যস্ত রা’স্তার’ পাশে পড়ে থাকা মা’য়ের মুখ’টা আকা’শমু’খী। মা’কে দেখার জন্য ভি’ড় করেছে অচে’না মানুষ’গুলো। তিন বছরে’র ত’ন্বী তখ’নও বু’ঝে উঠতে পার’ছিল না, কী’ হয়ে’ছে তার মা’য়ের। নি’র্বাক দাঁড়ি’য়ে’ছিল নিষ্প্রা’ণ দে’হে’র হা’ত ধরে, আর ফ্যা’লফ্যালি’য়ে তাকা’চ্ছিল প্রত্য’ক্ষদ’র্শীদের মুখ’পানে’।

শি’শুটি কী’ বুঝ’তে পে’রেছে এ ধ’রাতে তার স’বচেয়ে আপ’নজ’ন আ’র’ নে’ই? চলে গে’ছেন চি’রত’রে পর”পারে? না বুঝ’লে’ই বা কী’ হবে — এ যেন চ’রম বা’স্ত’বতা। শনি’বার (২৪ অক্টোবর) বিকে’লে ‘হবিগঞ্জ-বানি’য়াচং সড়কের শুঁ’ট’কি ব্রি’জের কাছে জোনা’কী’ আক্তার (২২) নামে এক না’রীর ম’রদে’হ উ’দ্ধা’র করে পু’লিশ।

তখন তিন ব’ছর ব’য়সী মে’য়ে ত’ন্বী পড়ে থাকা মায়ে’র হাত ধরে দাঁড়ি’য়েছি’ল। এরপর পু’লিশ ম’র’দেহ’টি ম’য়নাত’দ’ন্তের জন্য হবিগ’ঞ্জ আ’ড়াই’শ’ শয্যার আ’ধুনিক জে’লা সদর হাসপাতা’লে পাঠায়। একইস’ঙ্গে’ মে’য়েটি’কেও নিয়ে যায় থা’নায়।

বা’নি’য়াচং থা’নার ভা’র’প্রাপ্ত কর্ম’ক’র্তা (ওসি) মো. এম’রান হোসে’ন জানি’য়ে’ছেন, ছোট্ট শি’শু ত’ন্বী কথা বল’তে পা’রছি’ল না। মায়ে’র ম’র’দে’হের’ পা’শেই দাঁড়ি’য়েছি’ল। তিনি নিজের গাড়ি’তে করে’ই মে’য়েটিকে থা’নায় নিয়ে যান। সেখা’নে একটি আ’পেল খেতে দেন। খবর পে’য়ে তন্বী’র নানী থা’নায় আ”সেন। এখন সে না’নী’র স’ঙ্গেই রয়েছে।

পু’লিশ জানায়, গৃ’হব’ধূ জো’নাকী’ বানি’য়াচং উপজে’লার রঘু চৌধু’রীপাড়ার অ’পু মি’য়ার স্ত্রী’ ও আবু মিয়া’র মে’য়ে। তিনি দুই স’ন্তানের মা। প্রায় এক মাস আ’গে ত’ন্বী’কে স’ঙ্গে নিয়ে স্বামী এবং অ’পর স’ন্তানকে ফেলে অনি’ক নামে এক ছে’লের স’ঙ্গে নেত্র’কোনা চলে যান।

শনিবার অ’নিক হবিগঞ্জ থেকে এক’টি সিএনজি অ’টোরিক’শায় করে জো’নাকী’র ম’র’দে’হ নিয়ে বানি’য়াচং যা’চ্ছিলেন। পথে শুঁট”কি ব্রিজ এলাকায় অ’টোরি’কশা থামা’লে স্থানীয়’রা গাড়ি’তে ম’রদে’হ দেখে তাকে তা’ড়া ক’রেন।

তিনি হা’ওর দি’য়ে পা’লানো’র চে’ষ্টা করলে এলাকার লো’কজন তা’কে আ’ট’ক করে থা’নায় খ’বর দেয়। পু’লিশ এসে তা’কে থা’না হে’ফা’জতে নেয়। তিনি বানি’য়াচং উপজে’লার কাষ্ট’গর গ্রা’মের নিহাল পা’ণ্ডের ছে’লে।

Advertisement
Advertisement

Check Also

হিজড়াদের কখনোই তিনটি জিনিস দেবেন না, দিলে আপনার সর্বনাশ হবেই

Advertisement শহরের ব্যাস্ত সময় রাস্তা ঘাটে, বাসে ট্রেনে, ভিড়ের মাঝে তাদের দেখা যায়। তারা রঙিন …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!