জলভাগে আরো শ’ক্তিশালী ভা’রত, আ’তঙ্কে চী’ন

লা’দাখে ভারত-চীন সীমা’ন্তে সং’ঘর্ষের আ’বহে একের পর এক যু’দ্ধবিমান, মিসা’ইলের সফল উৎক্ষেপণের পর এবার জলপথেও নিজের শক্তি বাড়িয়ে চলেছে ভারত। ভারতীয় নৌ’সে’নার শ’ক্তি বাড়াতে এবার নৌ’বাহি’নী’র যু’ক্ত হলো অত্যা’ধুনিক সাবমেরিন তথা বি’ধ্বং’সী র’ণত’রী আইএনএস কাভারাত্তি।

গত বুধবার, ভা’রতীয় স্থলসেনা বি’ভাগের প্রধান জে’নারেল ম’নোজ মু’কুন্দ নারাভানের উপস্থিতিতে এই স্টেলথ করভেটটি ভারতীয় নৌ’সে’নার অ’ন্তর্ভু’ক্ত হয়। বুধবার, বিশাখাপট্টনমের নেভাল ড’কয়ার্ডে এ সংক্রান্ত একটি অনুষ্ঠানের আয়োজন করে আনুষ্ঠানিকভাবেই আ’ইএনএস কাভারাত্তি ভারতীয় নৌ’সে’না বিভাগের অন্তর্ভুক্ত হলো।

উল্লেখ্য, সম্পূর্ণ দেশীয় প্রযু’ক্তিতে তৈরি এই রণ’তরীটি শ’ত্রু প’ক্ষের বিরু’দ্ধে ভা’রতীয় সে’নাবাহি’নীর শ’ক্তি আরো বৃ’দ্ধি করলো। এর আ’গেও অবশ্য এরকম তি’নটি জাহা’জ ভার’তীয় সেনার অ’ন্তর্ভুক্ত হয়েছে। ডি’রেক্টরেট অফ নে’ভাল ডিজাইনের তরফ থেকে এই জা’হাজের নকশা তৈরি করা হয়েছে।

লাদাখ সীমান্তের পাশাপাশি ভারত মহাসাগরেও চিনা কার্য’কলাপ চো’খে পড়ছে। পিপলস লিবারেশন আ’র্মির জল’সে’নাকে যেকোনো পরিস্থিতিতে পরাস্ত করতে তৎপর হয়েছে ভারত। উল্লেখ্য, আগামী বছর মা’র্কিন যু’ক্তরাষ্ট্রের কাছ থেকে ভারত চারটি পি-৮আই বিমান আমদানি করবে বলে জানা গেছে।

পাশাপাশি, আগামী বছরেই এরকম আরো ছয়টি বিমান কেনার পরিকল্পনা করেছে ভারত। উপকূলীয় অঞ্চলে নজরদারি চালাতে, শ’ত্রুপ’ক্ষের সাব’মেরিন ও যু’দ্ধজা’হাজের অবস্থান জানতে এবং শ’ত্রু’পক্ষের উপর অতর্কিত হা’মলা চালাতে স’ক্ষম এই যু’দ্ধ বিমান গু’লি।

এই যু’দ্ধবি’মানে থাকছে অ’ত্যাধুনিক হার”পুন ব্লক-২ ক্ষে’পণা’স্ত্র যার পাল্লা প্রায় ৫০ কিলোমিটার। এছাড়াও এর মধ্যে শ’ত্রুপ’ক্ষের সা’বমেরি’ন ধ্বং’স করার জন্য প্রয়ো’জনীয় হালকা ওজনের ট’র্পেডো ও ডেপ’থ চা’র্জও রাখা হয়েছে। স্থল’পথ আকাশপথের পাশাপাশি জল’পথেও শত্রুপক্ষকে টে’ক্কা দিতে সম’র্থ ভারত।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!