মধ্যরাতে ক’রোনা রোগীকে মা’রধ’র করে তাড়ি’য়ে দিল যে – OnlineCityNews

মধ্যরাতে ক’রোনা রোগীকে মা’রধ’র করে তাড়ি’য়ে দিল যে

নারা’য়ণগঞ্জের রূপ’গঞ্জে নাজমুল নামে ক’রো’নায় আ’ক্রান্ত এক যুবক’কে ম’ধ্যরা’তে মা’রধর করে রাস্তায় বের করে দেওয়ার অভি’যোগ উঠেছে বাড়ির মা’লিক’সহ স্থানীয় প্রভাবশা’লী কিছু ব্য’ক্তির বিরু’দ্ধে।

বুধবার (০৬ মে) রাত সাড়ে ১১টার দিকে উপ’জে’লার ‘রূপসী বাগ’বাড়ি এলাকায় মর্মা’ন্তিক এই ঘটনা ঘটে। মা’রধর করে তাড়ি’য়ে দেয়ার পর না’জমুল একটি মস’জিদের সামনে থেমে থাকা রি’কশায় বসে কান্না’কা’টি ক’রতে থাকে। পরে তাকে উ’দ্ধারে তৎপরতা চা’লায় থা’না পু’লিশ এবং উ’পজে’লা প্রশাসন। ইউএনও’র হস্তক্ষেপে র”ক্ষা পায় যুবকটি। তার পড়নে পি’পিই গাউন ছিল। এ অব’স্থাতে’ই রাস্তায় বের করে দেয়া হয় তাকে।

নির্যাত’নের শিকা’র ক’রোনা রো’গী নাজ’মুল ময়’মি’নসিংহের বা’সিন্দা আবু সিদ্দিকের ছেলে। রূপগ’ঞ্জের রূপ’সী বাগ’বাড়ি এলাকা’র নূর হোসেন ওরফে কা’ইল্লা নূরার বাড়িতে ভাড়ায় বস’বাস কর’ছেন এবং স্থানী’য় সিটি গ্রু’পে চাক’রি করার পা’শা’পাশি পড়া’শোনাও করছে বলে এলা’কাবা’সী ও স্বজন’রা জানি’য়েছে।

নাজ’মুলের মামা সি’রাজ বলেন, না’জমুলের জ্ব’র, সর্দি’সহ ‘ক’রো’নার নানা উপসর্গ দেখা দিলে ৩ মে উপ’জে’লার স্বাস্থ্য বিভাগে তার নমু’না দিয়ে আসি।’ বুধবার (০৬ মে) রিপোর্টে তার প’জিটি’ভ আসে। কিন্তু তার কো’নো উপ’সর্গ ছিল না। তারপ’রও চিকিৎ’সকের পরা’মর্শে বাসা”তেই ছিল। কিন্তু বিষয়টি জা’নাজানি হওয়া’র পর রাতে বা’ড়ির মালিকসহ এলাকার কিছু লো’কজন এসে জো’র করে তাকে বাড়ি থেকে বের করে দেয়। এই অব”’স্থায় সে মীর’বাড়ি ম’সজিদের কাছে দাঁড়িয়ে”’ আছে। এটা খুবই অমানবিক একটি কাজ।

ঘটনার সত্যতা নি’শ্চিত করে রূপগঞ্জ উপজে’লার নির্বাহী কর্মক’র্তা (ইউএনও) মমতাজ বেগম বলেন, আমি একটু আগে বিষয়টি শুনেছি। সাথে সাথেই ঘটনাস্থলে ডাক্তার এবং পু’লিশ পাঠানো হয়েছে। আমি নি’জেও ওই ছেলের সাথে কথা বলেছি। এমন অমানবিক কাজ কেউ কর”তে পারে না। তিনি বলেন, ছেলেটি’কে পু’লিশের মাধ্যমে উ’দ্ধার করে তার বাসায় পাঠা’নো হয়েছে। তার মা তার সাথে আছে। এখন আর দুশ্চি”র কোন কারণ নেই। তার পাশে আম'রা আছি।

এটি রাষ্ট্র বিরো”ধী অপ’রাধ হয়েছে বলে উল্লেখ করে তিনি জানান, যে ব্যক্তি বা যারাই এই কাজটি করেছে তাদের বি’রুদ্ধে আ’ইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। সকাল পর্যন্ত আমি অপে’ক্ষা করছি। সকালে ত’দন্ত করে শ”নাক্ত করব কারা এর সাথে জড়িত ছিল। তারা যতো প্রভা’বশালী হোক না কেন তাদের আইনের আওতায় এনে কঠোর শা’স্তির ব্যবস্থা করব।

ইউএনও মমতাজ বেগম আরো বলেন, এটা কোনো কুষ্ঠকা’ঠিণ্যরোগ নয় যে তাকে বাড়ি থেকে বের করে দিতে হবে, ঘৃণা করতে হবে। ছেলেটি আমা’দের পরামর্শে বাসায় আই’সো’লেশনে ছিল। এতো রাতে একজন মানু’ষকে এভাবে বাড়ি থেকে বের করে দেওয়াটা অমানবিক। যেহেতু দেশে আইন আছে, প্র’শাসন আছে। আম'রা বিষয়টি দেখব। আইন হাতে তুনে নেয়ার এখতিয়ার কারো নেই।

বিষয়টির নি”ন্দা প্রকাশ করে তিনি বলেন, ওই ছেলে ওই বাড়িতেই থাকবে। তাকে যদি সেখান থেকে হাসপাতা’ল বা অন্য কোথাও নিতে হয় সেটি আম'রা নেব। তার নি’রাপত্তার বিষয়’টিও নিশ্চিত করব। এভাবে একজন করো’না রো’গীকে বের করে দেওয়া মানে অ’কে সংক্রমিত করা। এ ব্যাপা’রে জানতে রূপগঞ্জ থা’না পু’লিশের অফিসার-ইন-চার্জ (ওসি) মাহমুদুল হাসানের মুঠোফো’নে কল করা হলেও তিনি রিসিভ করেননি। ফলে পুলি’শের পক্ষ থেকে কোনো রকম বক্তব্য পাও’য়া যায়নি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *