স্বামীকে হারিয়ে প্রায় পাগ’ল নববধূ – OnlineCityNews

স্বামীকে হারিয়ে প্রায় পাগ’ল নববধূ

বিয়ের বয়স এখনও দুই মাস অতিবাহিত হয়নি। মোছেনি হাতের মেহেদির রঙ। গ্রামের বাড়িতে ছুটি কাটিয়ে চট্টগ্রামে কর্মস্থলে ফেরার পথে ফেনীর ফতেপুর রেল’ক্র’সিংয়ে ট্রেনের ধা’ক্কা’য় রোববার (১১ অক্টোবর) বাস উল্টে দু’র্ঘ’ট’নায় প্রা’ণ হা’রা’ন সাদ্দাম হোসেন (২৮)।

নি’হ’ত সাদ্দাম জে’লার সদর দক্ষিণ উপজে’লার সুয়াগাজী সংলগ্ন কৃষ্ণপুর গ্রামের তাজুল ইস’লামের ছেলে। রোববার রাত ১১টার দিকে তার ম’র’দেহ গ্রামের বাড়ি আনার পর জানাজা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়। এখনও তার বাড়িতে চলছে শোকের মাতম।

নি’হ’তের চাচাতো বোন তাসলিমা আক্তার জানান, সাদ্দাম হোসেন চট্টগ্রাম প্রগতি ইন্ডাস্ট্রিতে চাকরি করতেন। তিনি বাড়িতে ছুটি কাটিয়ে কর্মস্থলে ফিরছিলেন। শনিবার (১০ অক্টোবর) দিবাগত শেষ রাতে নূরজাহান হোটেলের সামনে থেকে তিনি চট্টগ্রামগামী নাইট কোচে ওঠেন। ভোরে বাড়ির লোকজন দু’র্ঘ’ট’নার খবর পান।

তিনি আরও জানান, সাদ্দাম অত্যন্ত মিশুক প্রকৃতির ছিল। তিন ভাই ও এক বোনের মধ্যে সাদ্দাম ছিল সবার বড়। টা’না’পো’ড়’নে চলা সংসারে তিনি অনেক ঘা’ত-প্র’তি’ঘা’ত অ’তিক্রম করে মাস্টার্স শেষ করে চট্টগ্রামে প্রগতিতে চাকরি নেন। তার বাবা তাজুল ইস’লাম সুয়াগাজীতে একটি ফিলিং স্টেশনে চাকরি করেন।

সাদ্দামের বাবা তাজুল ইস’লাম বলেন, আমা’র তিন ছেলে ও এক মেয়ের মধ্যে সাদ্দাম ছিল সবার বড়। আমা’র অভাবের সংসারে সে অনেক ঘা’ত-প্র’তি’ঘা’ত অ’তিক্রম করে মাস্টার্স শেষ করে চট্টগ্রামে প্রগতিতে চাকরি নেয়। তার ছোট দুই ভাই এখনও লেখাপড়া শেষ করতে পারেনি। একজন কলেজে পড়ছে, অন্যজন একটি হাফেজিয়া মাদরাসায় পড়ে।

গত ১৪ আগস্ট সাদ্দামের বিয়ে হয়েছে। তার বিয়ের বয়স এখনও দুই মাস পার হয়নি। স্বামীকে হারিয়ে তার স্ত্রী উর্মী এখন পা’গ’ল’প্রায়। উপার্জনক্ষম বড় সন্তানকে হারিয়ে তাদের পরিবারে শোকের ছায়া নেমে এসেছে বলেও তিনি জানান।

রোববার (১১ অক্টোবর) ভোর ৬টার দিকে ফেনীর ফতেপুর রেল’ক্র’সিং’য়ে ট্রেনের ধা’ক্কা’য় বাস উ’ল্টে তিনজনের মৃ’ত্যু হয়। কুমিল্লার সাদ্দাম তাদেরই একজন। ওই ঘটনায় আরও ১৫ জন আ’হ’ত হন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *