এইচএসসির রেজাল্ট যেভাবে নির্নয় করে প্রকাশের মতামত জানালেন

এতদিন শিক্ষার্থীরা পরীক্ষা নিয়ে চিন্তিত ছিলো; এখন নতুন চিন্তা রেজাল্ট নিয়ে! কীভাবে হবে তাদের মূল্যায়ন? এই চিন্তায় তারা দিনাতিপাত করছে। আম'রা বিভিন্ন মিডিয়ার বরাতে যা জানতে পেরেছি তা হলো,

এস.এস.সি ও সমমান এবং জে.এস.সি/ সমমানের ফলাফলের ভিত্তিতে সমন্বয়ের মাধ্যমে পরীক্ষার্থীদের ফলাফল প্রকাশিত হতে পারে! দু’বছর শিক্ষার্থীরা অক্লান্ত পরিশ্রমের মাধ্যমে নিজেদেরকে তৈরি করেছে পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করার জন্য।

অনেক শিক্ষার্থী আছে যারা মাধ্যমিকের থেকে উচ্চমাধ্যমিকে ভাল ফলাফল অর্জন করতে চায়। অতীতে দেখা যায়, অনেকে ভালো ফল অর্জন করেও!যদি এসএসসি/ সমমান এবং

জেএসসি/ সমমানের ফলাফলের ভিত্তিতে এইচএসসির ফলাফল প্রকাশিত হয় তাহলে বিগত দুবছরের বেশী সময় শিক্ষার্থীরা যে পরিশ্রম করেছে তা কোনোভাবে মূল্যায়িত হবে কি না প্রশ্ন থেকেই যায়।তাই, এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের

নির্বাচনী পরীক্ষার ফলাফল বিবেচনায় আনা জরুরি! কেননা নির্বাচনী পরীক্ষার ফলের সাথে পরিক্ষার্থীর পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করা না করা সহ অনেক বিষয় জড়িত থাকে।

সুতরাং এই পরীক্ষার একটি আইনি ভিত্তি আছে। শিক্ষা মন্ত্রনালয় চাইলেই দেশের সকল শিক্ষার্থীদের রেজাল্ট সংগ্রহ করা সম্ভব।নতুন ফলাফল প্রকাশে খসড়া প্রস্তাবনা:

এ ক্ষেত্রে এইচএসসি/সমমানের নির্বাচনী পরীক্ষার ফলের ভিত্তিতে জিপিএ ৫ এর মধ্যে ৩ নিয়ে এবং এসএসসিতে অর্জিত রেজাল্ট এর ভিত্তিতে জিপিএ ৫ এর মধ্যে ২ নেয়া যেতে পারে।

এভাবে সমন্বয় করে ফলাফল প্রকাশ করলে শিক্ষার্থীদের উপর সুবিচার করা হবে। উপর্যুক্ত বিষয়াবলী অধিকতর গবেষণার দাবী রাখে, প্রয়োজনে শিক্ষা মন্ত্রনালয়

বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ গ্রহণ করতে পারে। এইচএসসি/ সমমানের পরীক্ষার্থীদের এসএসসি/ জেএসসি/ সমমানের অর্জিত ফলের ভিত্তিতে এইচএসসি/ সমমানের ফলাফল প্রকাশিত হলে তা শিক্ষার কা’ঙ্ক্ষিত উদ্দেশ্যকে ব্যাহত করবে।

এই জন্য এইচএসসি/ সমমানের পরীক্ষার্থীদের নির্বাচনী পরীক্ষার ফলাফল বিবেচনায় এনে, আরো উপযোগী যৌক্তিক শর্তাবলীর সমন্বয়ে ফলাফল প্রকাশ কাম্য।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!