তথ্যমন্ত্রী হলেন জিয়া পরিবারের সমালোচনা বিষয়ক মন্ত্রী: নজরুল – OnlineCityNews

তথ্যমন্ত্রী হলেন জিয়া পরিবারের সমালোচনা বিষয়ক মন্ত্রী: নজরুল

সরকার দ্বিতীয় দফায় খালেদা জিয়ার সাজা স্থগিত করলেও বিএনপি নেতারা তার বিষয়ে যেভাবে বক্তব্য দিচ্ছেন, তাতে তাকে ফের কারাগারে পাঠানোর দাবি উঠতে পারে তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ’র এমন বক্তব্যের সমালোচনা করে বিএনপির স্থয়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইস’লাম খান বলেছেন,







এর আগেও যিনি তথ্যমন্ত্রী ছিলেন, এখনও যিনি আছেন, উনারা হলেন জিয়া পরিবারের সমালোচনা বিষয়ক মন্ত্রী। সোমবার (২১ সেপ্টেম্বর) বেলা ১১টার দিকে বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের মাজারে স্বেচ্ছাসেবক দলের নতুন কমিটির নেতৃবৃন্দের শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে তিনি এসব কথা বলেন।







নজরুল ইস’লাম খান বলেন, তথ্যমন্ত্রী বিভাগীয় বিষয়ে যে সকল কথা বলেন, তার থেকে তিনি বেশি কথা বলেন শহীদ জিয়ার বিপক্ষে, বেগম খালেদা জিয়ার বিপক্ষে এবং তারেক রহমানের বিপক্ষে। মনে হয় যেন এটাই তাদের মন্ত্রণালয়ের কাজ।







তিনি বলেন, বেগম খালেদা জিয়া একটি অন্যায় অবিচারে কারারুদ্ধ হয়ে আছেন। তিনি গুরুতর ভাবে অ’সুস্থ। দেশ-বিদেশের সবাই তা জানেন, তার চিকিৎসা প্রয়োজন। এ নিয়েও কারো মনে কোনো দ্বন্দ্ব নেই।







বিএনপির এই সিনিয়র নেতা বলেন, ‘এই কোভিড-১৯ চলাকালে যখন কেউ কারো সঙ্গে দেখা করতে পারে না। এমন সময় তাকে (খালেদা জিয়া) তার বাসায় থাকার অনুমতি দেয়া হয়েছে, ভালো হয়েছে। উনি বাসায় থাকার ফলে অন্তত মানসিক কষ্টটা কিছুটা হলেও কমেছে কিন্তু তার সুচিকিৎসার বিষয়টা,







যেটা মানবিক না এটা নৈতিক এবং জনগণের দাবি। যে কেউ একজন অ’সুস্থ হলে তার প্রয়োজনীয় চিকিৎসা হওয়া দরকার। এ কারণে খালেদা জিয়াকে চিকিৎসা নেয়ার সুযোগটা দেয়া উচিত।’







বিএনপির এই নেতা বলেন, এদেশের সবচেয়ে বেশি জনপ্রিয় মানুষ বেগম খালেদা জিয়াকে বিনা চিকিৎসায় অকালে দুনিয়া থেকে চলে যাওয়ার ব্যবস্থা করার অধিকার কারও নেই। উচিতও না। সেজন্য আম'রা তথ্যমন্ত্রীকে বলবো খালেদা জিয়ার মুক্তি কিংবা তার কারাবন্দি এর সঙ্গে অন্য কোন কিছু নিয়ে যুক্তি দেয়াটা ঠিক হবে না।







কারণ এটা অ’সুস্থতার বিষয় এর সঙ্গে অন্য কিছু যুক্ত করা ঠিক না। বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী আহমেদ, যুগ্ম মহাসচিব ও ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির সভাপতি হাবিব-উন-নবী খান সোহেল,







ঢাকা বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক মিলন, বিএনপির স্বেচ্ছাসেবক বিষয়ক সম্পাদক মীর সরফত আলী সপু, বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী স্বেচ্ছাসেবক দলের ভা’রপ্রাপ্ত সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান ও সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কাদির ভুঁইয়া জুয়েলসহ অসংখ্য নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন।






Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *