ভারতের পেঁয়াজ আমদানি বন্ধের খবরে দেশে প্রতি কেজিতে বাড়ল যত টাকা – OnlineCityNews

ভারতের পেঁয়াজ আমদানি বন্ধের খবরে দেশে প্রতি কেজিতে বাড়ল যত টাকা

হিলি স্থলবন্দর দিয়ে ভা’রতীয় পেঁয়াজ আমদানি বন্ধ খবরে কেজিতে বেড়ে গেছে ১০ টাকা করে। এদিকে, আমদানি বন্ধের খবরে আড়ৎগুলোতে পেঁয়াজের বিক্রি বন্ধ করে দিয়েছেন ব্যবসায়ীরা। সোমবার (১৪ সেপ্টেম্বর) সকালে যে পেঁয়াজ বিক্রি হয়েছে কেজিতে ৩৮ থেকে ৪০ টাকা, সেই পেঁয়াজ বর্তমানে বিক্রি হচ্ছে ৫০ থেকে ৫৫ টাকা কেজির দরে।







মূলত খুচরা বাজারে পেঁয়াজের দাম বেড়েছে কেজিতে ১০ টাকা। ভা’রতের সঙ্গে পেঁয়াজ রফতানির নিয়ে এলসি করা হয়েছে। এছাড়াও দেশটির অভ্যন্তরে রয়েছে ১শ’ উপরে পেঁয়াজ বোঝাই ট্রাক। এগুলো সময় মতো দেশে প্রবেশ না করলে ক্ষতি গুণতে হবে বলে জানান দেশের পেঁয়াজ ব্যবসায়ীরা







সকাল থেকে ভা’রতীয় পেঁয়াজের রফতানি বন্ধ করে ভা’রত সরকার। সোমবার (১৪ সেপ্টেম্বর) দুপুরে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ভা’রতের সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট শংকর দাস। তিনি আরও জানান, সম্প্রতি ভা’রতের বিভিন্ন রাজ্যে অতিবৃষ্টি ও ব’ন্যায় সরবরাহে ঘাটতি দেখা দেয়ায় ভা’রতের বাজারে দাম বৃদ্ধি পাওয়ায় বাংলাদেশে পেঁয়াজ রফতানি বন্ধ রাখা হয়েছে।







পরবর্তী নির্দেশ না আসা পর্যন্ত পেঁয়াজ রফতানি বন্ধ থাকবে বলে জানান ভা’রতীয় কাস্টমস কর্মক’র্তারা। এ সংক্রান্ত সরকারি প্রজ্ঞাপন এখনও জারি হয়নি, তবে অচিরেই জারি হবে বলে তিনি জানান।  এছাড়াও পেঁয়াজ আমদানির জন্য যেসব এলসি খোলা রয়েছে এবং টেন্ডার প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়েছে সেগুলোর বিপরীতেও কোনও পেঁয়াজ রফতানি হবে না।







হিলি স্থলবন্দরের আমদানি-রফতানিকারক গ্রুপের সভাপতি হারুন উর রশিদ হারুন, সকাল থেকে ভা’রত থেকে পেঁয়াজ বোঝাই কোন ট্রাক হিলি বন্দরে প্রবেশ করেনি। তবে ভা’রত পেঁয়াজ রফতানি বন্ধ করবে কি না সে বিষয়ে এখন পর্যন্ত কোনো চিঠি ভা’রতীয় সরকারের পক্ষ থেকে আমা’দেরকে দেয়া হয়নি।







আম'রা সেখানকার স্থানীয় ব্যবসায়ীদের সাথে যোগাযোগ রাখছি পেঁয়াজের রফতানি স্বাভাবিক রাখতে। হিলি স্থলবন্দরের কয়েকজন পেঁয়াজ আমদানিকারক জানান, ‘কিছুক্ষণ আগে ভা’রতীয় রফতানিকারক ও সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট আমা’দের জানিয়েছেন যে ভা’রত কোনো পেঁয়াজ রফতানি করবে না।







এ বিষয়ে কোনো চিঠি না দিলেও ভা’রতীয় কাস্টমসের নিষেধ থাকায় সকাল থেকে পণ্যটি আমদানি বন্ধ রয়েছে। তিনি আরও জানান, আমা’দের অনেক আমদানিকারকের বিপুল পরিমাণ পেঁয়াজ আমদানির জন্য এলসি খোলা রয়েছে। আম'রা তো এখন বিপাকের মধ্যে পড়ে গেছি।







আম'রা তাদেরকে বলছি আমা’দের যেসব এলসি খোলা রয়েছে সেগুলোর পেঁয়াজ রফতানির জন্য। আমা’দের অনেক এলসির বিপরীতে অনেক ট্রাক মাল নিয়ে সড়কে দাঁড়িয়ে রয়েছে। এখন যদি তারা পেঁয়াজ না দেয় তাহলে আমা’দের এই সব পেঁয়াজের কী অবস্থা হবে সেই চিন্তায় আছি।







এ বিষয়ে হিলি কাস্টমসের রাজস্ব কর্মক’র্তা সাইফুল ইস’লাম জানান, ভা’রতীয় কাস্টমসের সাথে কথা হয়েছে সরকারি নির্দেশনা থাকায় পেঁয়াজ রফতানি বন্ধ রয়েছে। তবে পরবর্তী সরকারি নির্দেশনা না আসা পর্যন্ত বন্ধ থাকবে বলে তারা জানিয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *