দ্বিতীয় দিনে সিবিআই যে প্রশ্নে করেছেন, প্রশ্নের জবাব দিতে গিয়ে হিমশিম রিয়া! – OnlineCityNews

দ্বিতীয় দিনে সিবিআই যে প্রশ্নে করেছেন, প্রশ্নের জবাব দিতে গিয়ে হিমশিম রিয়া!

সুশান্ত সিংহ রাজপুত মৃ’ত্যু মা’মলায় সিবিআইয়ের জিজ্ঞাসাবাদের মুখে পড়েছেন মূল অ’ভিযুক্ত রিয়া চক্রবর্তী। আজ নিয়ে টানা তিন দিন তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদ করছে সিবিআই। এর আগে দুদিনের জিজ্ঞাসাবাদে রিয়ার জবাব সন্তুষ্ট হয়নি সিবিআই। এ জন্য এদিন আবার জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ডাকা হয় তাঁকে।

শনিবার রিয়াকে টানা দ্বিতীয়বার জিজ্ঞাসাবাদ করেছিল কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা। গতকাল সাত ঘণ্টা সিবিআইয়ের প্রশ্নের সম্মুখীন ‘হতে হয়েছিল তাঁকে। এই সব প্রশ্নের জবাব দেওযার চেষ্টা করেন তিনি। কিন্তু সূত্রের খবর, প্রশ্নগু’লির সন্তোষজনক জবাব দিতে গিয়ে হিমশিম খেতে হয় তাঁকে।

দ্বিতীয় দিন রিয়াকে যে প্রশ্নগু’লি করা হয়, সেগু’লির উত্তর কীভাবে দিয়েছেন রিয়া, দেখে নেওয়া যাক-১. খারের সম্পত্তিতে আপনি যত হাউসিং লোন নিয়েছেন, তার চেয়ে বেশি অর্থ আপনি ও শৌভিক সুশান্তর স’ঙ্গে শুধুমাত্র ইউরোপ সফরেই খরচ করেছেন। এ ব্যাপারে আপনার বক্তব্য কী?

২. আপনার গত তিন বছরের বার্ষিক আয় কত এবং কীভাবে এই আয় হয়েছে? (যে প্রোজেক্ট থেকে আয় হয়েছে সেগু’লির নথিপত্র দেখানো হয় এবং ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টও যাচাই করে দেখা হয়।)৩. আপনার আয় অনুসারে আপনার লা’ইফস্টাইল বজায় রাখা কঠিন ছিল?  এজন্যই কি আপনি সুশান্তর কার্ড থেকে মাঝেমধ্যেই শপিং করতেন? (জবাব- সুশান্ত নিজে থেকেই দিতেন।)

৪. যদি সুশান্তই দিয়ে থাকেন, তাহলে মিরান্ডার থেকে সুশান্তর কার্ডের পিন কেন নিতে হল? আপনি তো নিজেই সুশান্তর কাছ থেকেও পিন চাইতে পারতেন! (স্পষ্ট কোনও জবাব নেই)

৫. আপনার প্রথম বয়ান অনুসারে সুশান্ত সেপ্টেম্বর মাস থেকে মানসিক সমস্যায় ভুগছিলেন। তাহলে এ ব্যাপারে আপনি দুমাস পর্যন্ত কাউকে কিছু জানাননি কেন? নভেম্বরে চিকিত্সার জন্য তিনি যখন ভর্তি হন, তখন এ ব্যাপারে জানতে পারেন তাঁর বোনেরা। (সন্তোষজনক জবাব নেই)।

৬. সুশান্তর অ’সুস্থতার ব্যাপারে কাকে জানিয়েছিলেন? পরিবারের কোনও সদস্যকে কেন জানাননি?৭. আপনি যখন জানতেন যে সুশান্ত শান্তি পেতে তাঁর দিদিদের স’ঙ্গে দেখা করতে পাঁচকুলায় গিয়েছেন, তখন আপনি তাঁকে পরিবারের স’ঙ্গে একা থাকতে দেওয়ার পরিবর্তে ২৫ বার ফোন কেন করেছিলেন? (ভাসা ভাসা জবাব)

৮. সুশান্ত বাবা আপনাকে মেসেজ করে আপনার স’ঙ্গে কথা বলতে চেয়েছিলেন। আপনি এক কোনও জবাব দেননি কেন?

৯. আপনি কি জানতে যে, জুন মাসের শুরু থেকেই সুশান্তর স্বাস্থ্যের অবনতি ‘হতে শুরু করেছে? (জবাব-হ্যাঁ, সুশান্ত কিছুদিন ধরে অস্বস্তি বোধ করছিলেন।)১০. সুশান্তর শরীর খারাপ ছিল এবং তিনি কিছু চিকিত্সকের কাছে ধা’রাবাহিকভাবে চিকিত্সা করাচ্ছিলেন। তাঁকে কী ধরনের ওষুধ দিতে ‘হত, এর তথ্য আপনি ছাড়া আর কার জানা ছিল?

১১. ৮ জুন ঘর ছাড়ার আগে আপনি কী কাউকে বলে গিয়েছিলেন যে সুশান্তকে কোন সময় কোন ওষুধ দিতে হবে এবং কোন বি’ষয়টি খেয়াল রাখতে হবে ?

১২. আপনি কি জানতেন যে আপনি বাড়ি ছেড়ে চলে যাওয়ার পর সুশান্তর স্বাস্থ্য আরও খারাপ ‘হতে পারে এবং ওই সময় ওষুধ দেওয়ার জন্য কেউ থাকবে না।তিনি কি নিজেই ওষুধ খাওয়া বন্ধ করে থাকতে পারেন?১৩. তাঁর সমস্যার ব্যাপারে ওয়াকিবহাল হওয়ার পরও আপনি জেনেশুনে তাঁর মোবাইল নম্বর ব্লক করেছিলেন এবং তাঁকে আরও অস্থির করে তুলতে পরের এক স’প্ত াহ তাঁর স’ঙ্গে কোনও যোগাযোগ করেননি?

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *