শিক্ষকদের জন্য বড় দুঃসংবাদ, কঠোর বার্তা দিলেন শিক্ষামন্ত্রী – OnlineCityNews

শিক্ষকদের জন্য বড় দুঃসংবাদ, কঠোর বার্তা দিলেন শিক্ষামন্ত্রী

দেশের শিক্ষকদের উদ্দেশ্যে কঠোর বার্তা দিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। তিনি বলেছেন, শিক্ষাঙ্গনগুলোকে মা’দক ও র‌্যা’গিংমুক্ত রাখতে হবে। এর জন্য শিক্ষকদেরও দায়বদ্ধতা রয়েছে। সবাইকে এ কাজে সচেষ্ট হতে হবে। প্রয়োজনে বিতর্ক প্রতিযোগিতা ও সাংস্কৃতিক নানা আয়োজন করতে হবে।

এগুলো করা গেলে ক্যাম্পাসগুলোতে সত্যিকারের সোনার মানুষ তৈরি হবে, যারা বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়তে পারবে। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৫তম শা’হাদাতবার্ষিকী ও জাতীয় শো’ক দিবস পালন উপলক্ষে বাংলাদেশ বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় সমিতি আয়োজিত আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন শিক্ষামন্ত্রী।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন সমিতির সভাপতি শেখ কবির হোসেন। সমিতির সাধারণ সম্পাদক বেনজির আহমেদের সঞ্চালনায় বক্তব্য দেন পানিসম্পদ উপমন্ত্রী একেএম এনামুল হক শামীম, শিক্ষা উপমন্ত্রী ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিব মাহবুব হোসেন,

বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের (ইউজিসি) চেয়ারম্যান অধ্যাপক কাজী শহীদুল্লাহ, বাংলাদেশ অ্যাক্রেডিটেশন কাউন্সিলের চেয়ারম্যান অধ্যাপক মেসবাহউদ্দিন আহমেদ, বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় সমিতির ভাইস চেয়ারম্যান অধ্যাপক আবদুল মান্নান চৌধুরী এবং এ অনুষ্ঠানের আহ্বায়ক নুরুল ফজল বুলবুল।

এ আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদের একটি বাণী পড়ে শোনান শেখ কবির হোসেন। অনুষ্ঠানের শুরুতেই জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জীবনীর ওপরে একটি ভিডিওচিত্র প্রদর্শন করা হয়।

ডা. দীপু মনি বলেন, বঙ্গবন্ধুর লেখা তিনটি বই কেবল শিক্ষার্থীদের জন্য নয়, প্রত্যেকের জন্য পাঠ্য। বঙ্গবন্ধুকে যত জানব, তাকে ধারণ করতে পারব, ততই আম'রা বিশ্ব নাগরিক হয়ে গড়ে উঠতে পারব। উচ্চশিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে গবেষণা ও প্রকাশনা বাড়িয়ে র‌্যাঙ্কিংয়ে স্থান পেতে জোর দিতেও পরামর্শ দেন তিনি।

তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুকে হ’ত্যার পর অনেক প্রজন্মকে মিথ্যাচারের মাধ্যমে বহু বছর অন্ধকারের মধ্যে ফেলে রাখা হয়। ১৯৯৬ সালের আগ পর্যন্ত তারা সঠিক ইতিহাস জানত না। আজও ষড়য’ন্ত্রকারীরা বসে নেই। ৭৫-এর হ’ত্যাকারীরাই ২০০৪ সালের ২১ আগস্ট গ্রে’নেড হা’মলা চালিয়ে বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনাকে হ’ত্যার চেষ্টা করেছে।

দীপু মনি বলেন, বঙ্গবন্ধুর শিক্ষা ভাবনা বুঝতে চাইলে আওয়ামী লীগের জন্মকালীন ইশতেহার ও ৭০ সালের নির্বাচনী মেনিফেস্টো দেখতে হবে। স্বাধীন দেশে বঙ্গবন্ধু প্রাথমিক শিক্ষাকে অবৈতনিক ও জাতীয়করণ এবং কুদরাত-এ-খুদা শিক্ষা কমিশন গঠন করেছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *