সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃ’ত্যু নিয়ে এবার বো’মা ফা’টালেন স্বস্তিকা

সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃ’ত্যুর ঘটনায় ত’দন্ত করছে CBI। ত’দন্ত চলাকালীন রোজই উঠে আসছে নানান তথ্য। যদিও সুশান্তের মৃ’ত্যুর ঘটনায় প্রথমে ‘মানসিক অবসাদ’-এর তত্ত্বই খাড়া করেছিল মুম্বই পুলিস। বর্তমানে মা’মলা অবশ্য অন্য দিকেই মোড় নিচ্ছে বলা চলে।

তবে শেষ ছবি ‘দিল বেচারা’র শ্যুটিং চলাকালীন ঠিক কেমন ছিলেন সুশান্ত? তাঁকে কি কখনও আদৌ মানসিক অবসাদগ্রস্ত বলে মনে হয়েছিল? সম্প্রতি অ’ভিনেত্রী স্বস্তিকা মুখোপাধ্যায়ের স’ঙ্গে ‘তাসের ঘর’ ছবি নিয়ে কথা বলার সময় আবারও ফিরে এল সুশান্ত প্রস’ঙ্গ।

‘দিল বেচারা’ ছবির ‘কিজি বসু’র মায়ের চরিত্রে দর্শকদের মন কেড়েছেন। তবে স্বস্তিকা এখন ‘সুজাতা’। ৩ সেপ্টেম্বর মুক্তি পাবে তাঁর ‘তাসের ঘর’ ছবিটি। ‘তাসের ঘর’-এর সুজাতাকে নিয়ে কথা বলতে গিয়ে সেই ঘুরে ফিরে উঠে এল সুশান্তের প্রস’ঙ্গ। ‘তাসের ঘর’-এর সুজাতা একা থাকতে ভালোবাসেন। গাছের স’ঙ্গে কথা বলতে ভালোবাসেন। কোনওভাবে এখানে ও কি অবসাদগ্রস্ত?

স্বস্তিকাকে এ প্রশ্ন করতেই স’ঙ্গে স’ঙ্গে বললেন, ” না না, একেবারেই নয়। আমা’রও তো গাছের স’ঙ্গে সময় কা’টাতে ভালো লাগে। অনেকই রয়েছেন, যাদের গাছ খুব প্রিয়। গাছটা খুবই গু’রুত্বপূর্ণ বি’ষয় তাঁদের জীবনে। অবসাদের স’ঙ্গে এটার কোনও সম্পর্ক আছে বলে আমা’র মনে হয় না।

আমি জানি না, ২০২০তে এই ‘অবসাদ’ শব্দটা এত বেশি ব্যবহার হয়েছে। ও ঘু’মোচ্ছে, তাহলে হয়ত অবসাদে রয়েছে। ওর শীত করছে, তাহলে হয়ত অবসাদ। এই শব্দটা এখন ব্যবহার করতেও ভয় লাগে আমা’র। (হাসি) ” সুশান্তের ক্ষেত্রেও কিন্তু অবসাদের কথা উঠেছিল, এখন অনেক কথা শোনা যাচ্ছে। তুমি তো ওকে কাছ থেকে দেখেছ, তোমা’র কি কখনও এমন মনে হয়েছিল?

স্বস্তিকা : দেখো, কারোর মুখ দেখে কে অবসাদে আছে, আর কে নেই, সেটা বোঝা যায় না। তাঁর স’ঙ্গে কাজ করি, সংসার করি, তবে সে যদি আমাকে না বোঝাতে চায়, তাহলে বোঝাটা খুবই মুশকিল। অনেক সময় ২৪ ঘণ্টা একস’ঙ্গে থেকেও বোঝা যায় না। এমন ঘটনার কথাও শুনেছি রাতে একস’ঙ্গে ডিনার করেছে,

তারপরে ছাদ থেকে ঝাঁপ দিয়েছে। হয়ত দিনের বেলা অফিসে একাধিকবার কথা হয়েছে। ফিরে নেমন্তন্ন বাড়ি যাওয়ার কথা। বাড়ি না ফিরে মেট্রোয় ঝাঁপ দিয়েছে। তাই কার মনে কী চলছে, কাজ করে কী আর বুঝব?

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!