Breaking News
Home / বাংলা হেল্‌থ / ভাগ্না কাঁ’দতে কাঁ’দতে বলে মামা আমাকে মে’রো না, যে কারনে বোনের দুই সন্তানকে হ’ত্যা করেছেন মামা

ভাগ্না কাঁ’দতে কাঁ’দতে বলে মামা আমাকে মে’রো না, যে কারনে বোনের দুই সন্তানকে হ’ত্যা করেছেন মামা

Advertisement
Advertisement

ভ’গ্নিপ’তির থা’প্প’ড়ের প্রতি’শো’ধ নিতেই ১০ বছরের মেহেদী হাসান কামরুল ও তার ১৪ বছরের বোন শিফা আক্তারকে গ’লা কে’টে হ’ত্যা করে মামা বাদ’ল মিয়া। ব্রাহ্ম’ণবাড়িয়ার বাঞ্ছা’রামপুর উপজে’লার চাঞ্চ’ল্যকর ভাই-বোন হ’ত্যাকা’ণ্ডের রহ’স্য’ উদঘা’টনে এ তথ্য বের হয়ে এসেছে। ভাগ্নে-ভা’গ্নিকে হ’ত্যার দায় স্বী’কার করেছে মামা বাদল।

গতকাল বুধবার (২৬ আগস্ট) রাতে জে’লা পু’লিশের বি’শেষ শাখা (ডিএসবি) এক সংবাদ বি’জ্ঞপ্তিতে এসব ত’থ্য জানিয়েছে। বাদল কুমি’ল্লার হোমনা উপজে’লার খোদে-দাউদপুর গ্রা’মের মৃ’ত আব্দুর রবের ছেলে। গত মঙ্গলবার (২৫ আগস্ট) মধ্য’রা’তে ঢাকার সবুজ’বাগ থা’না এলাকা থেকে বাদ’লকে আ’টক করে পু’লিশ।

জে’লা পু’লিশের বিশেষ শাখা (ডিএসবি) এক সংবাদ বিজ্ঞ’প্তিতে জানায়, বাহ’রাইন প্রবাসী বা’দল গত মার্চ মাসে দেশে ফি’রে আসেন। গ্রা’মে গোষ্ঠী’গত দা’ঙ্গার একটি মা’মলা’য় আ’সা’মি হও’য়ার কারণে বা’ঞ্ছারামপুরের ছলিমাবাদ ইউপির সাহেবনগর গ্রামে তার বোন হাসিনা আক্তারের বাড়িতে আশ্রয় নেন।

প্রবাসে থাকার সময় দোকান করার জন্য ভগ্নি’প’তি কামাল উদ্দিনের কাছ থেকে ১৩ লাখ টাকা ধার নেন বাদল। এর মধ্যে তিন লাখ টাকা ফেরত দেন। বাকি ১০ লাখ টাকার জন্য কা’মালের সঙ্গে মনো’মা’লিন্য চলছিল তার। এর জে’রে সপ্তা’হখা’নেক আগে বাদলকে থা’প্পড় মা’রেন কা’মাল। এ ঘটনায় প্রতি’শো’ধ নেয়ার পরি’ক’ল্পনা করেন বাদল।

বিজ্ঞ’প্তিতে বলা হয়, গত ২৪ আগস্ট দুপুর আ’ড়াই’টার দিকে কামা’লের ছেলে কামরুল তার মা’মা বাদলের রুমে যায়। বাদল তখন রুমে উচ্চ’স্বরে গান বাজা’চ্ছি’লেন। এ সময় প্রতি’শো’ধের নে’শায় কা’মরু’লের হাত-পা বেঁধে গলা কে’টে তাকে হ’ত্যা করে বাদল। পরে ম’রদেহ খাটের নিচে লু’কিয়ে রাখে। ভা’গ্নি শি’ফা রুম ঝাড়ু দিতে গিয়ে দেখে ফেললে তা’কেও মা’রার জন্য ধ্ব’স্তাধ’স্তি করে বাদল।

একপর্যায়ে শিফা’কে ধা’ক্কা মেরে বাথরুমে নিয়ে তাকেও গ’লা কে’টে হ’ত্যা করে ম’রদেহ অন্য একটি রুমের খাটের নিচে রেখে দেয়। বিজ্ঞ’প্তিতে পু’লিশ আরো জানিয়েছে, ঘটনার দিন সন্ধ্যায় মা’গরিবের আ’জান হওয়ার পরও কাম’রুলকে না পেয়ে সবাই খোঁ’জাখুঁ’জি করার জন্য বাইরে বের হয়।

কিছু’ক্ষণ পর শিফা’কেও দেখতে না পেয়ে এলাকায় মাইকিং করা হয়। এরই মধ্যে বাদলকে সঙ্গে নিয়ে বাঞ্ছারামপুর ফেরিঘাট এলাকায় কামরুল ও শিফাকে খুঁজতে যান কামাল। কিন্তু কামালকে না বলেই বাদল সেখান থেকে পালিয়ে যায়। এ ঘটনায় বুধবার নিহ’তদের বাবা কামাল বাদী হয়ে বাদলের বিরু’দ্ধে হ’ত্যা মা’মলা করেছেন।

Advertisement
Advertisement

Check Also

লবণ, গোলমরিচ ও লেবু দূর করবে যে ১০টি জটিল স্বাস্থ্য সমস্যা!

Advertisement Advertisement সাধারণত সালাদ তৈরিতে আম'রা কী কী ব্যবহার করি? লবণ, গোলমরিচ এবং লেবু এই …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!