Breaking News
Home / ভারত / সুশান্ত কি স’ত্যি গাঁ’জার নে’শা করতেন? ‘মৃ’ত্যুর দিন ঘর থেকে পাওয়া গাঁ’জা থেকে উঠে এলো রহ’স্যজ’নক যেসব তথ্য

সুশান্ত কি স’ত্যি গাঁ’জার নে’শা করতেন? ‘মৃ’ত্যুর দিন ঘর থেকে পাওয়া গাঁ’জা থেকে উঠে এলো রহ’স্যজ’নক যেসব তথ্য

Advertisement

সর্বভারতীয় এক সংবাদমাধ্যমের রি’পোর্ট অনুযায়ী, সুশান্তের সঙ্গে বহুদিন থাকার সু’বাদে সিবি’আইকে সুশান্তের লা’ইফস্টাইল, বন্ধুবান্ধব, রিয়ার সঙ্গে সুশান্তের সম্পর্ক, সুশান্তের দিদিদের সঙ্গে তাঁর সম্পর্ক নিয়ে অনেক কথা জানিয়েছেন নীরজ ৷ গাঁ’জার নে’শা করতেন সুশান্ত সিং রাজপুত ৷

সিবিআইকে জেরায় এমনটাই জানিয়েছেন প্রয়াত অভিনেতার রাঁধুনি নীরজ সিং ৷ সুশান্তের জন্য গাঁ’জা পো’রা সি’গারেট বানিয়ে রাখত সে ৷ কিন্তু মৃ’ত্যুর দিন সুশান্তের ঘর থেকে পাওয়া সেই সি’গা’রেটের প্যাকেট দেখে নাকি চমকে উঠেছিলেন তিনি ৷ ১৪ জুন ভোর থেকে দুপুর পর্যন্ত বান্দ্রার ফ্ল্যাটে কী ঘ’টেছিল?

জানেন শুধু তিনজন। বন্ধু সিদ্ধার্থ পিঠানি, রাঁধুনি নীরজ সিং ও হাউসমেট দীপেশ সাওয়ান্ত ৷ অভিনেতার রাঁধুনিকে জেরা করে সুশান্তের সম্পর্কে বেশ কিছু চা’ঞ্চল্য’কর ত’থ্য পাওয়া গিয়েছে ৷ নীরজ জানিয়েছেন, সুশান্ত মাঝেমাঝে গাঁ’জার নে’শা করতেন ৷ তাঁকে গাঁ’জার সি’গারেট রো’ল করে দিত নী’রজই ৷

গাঁ’জার নে’শা করতেন সুশান্ত সিং রাজপুত ৷ সিবিআইকে জেরায় এমনটাই জানিয়েছেন প্রয়াত অভিনেতার রাঁধুনি নীরজ সিং ৷ সুশান্তের জন্য গাঁ’জা পোরা সিগারেট বানিয়ে রাখত সে ৷ কিন্তু মৃ’ত্যুর দিন সুশান্তের ঘর থেকে পাওয়া সেই সিগারেটের প্যাকেট দেখে নাকি চমকে উঠেছিলেন তিনি ৷

সর্বভারতীয় এক সংবাদমাধ্যমের রিপোর্ট অনুযায়ী, সুশান্তের সঙ্গে বহুদিন থাকার সুবাদে সিবিআইকে সুশান্তের লা’ইফস্টাইল, বন্ধুবান্ধব, রিয়ার সঙ্গে সুশান্তের সম্পর্ক, সুশান্তের দিদিদের সঙ্গে তাঁর সম্পর্ক নিয়ে অনেক কথা জানিয়েছেন ৷ ২০১৯-এর এপ্রিল মাস থেকে সুশান্ত সিং রাজপুতের পরিচারকের কাজ করছিলেন নীরজ ৷ সে ত’দন্তকারীদের জানিয়েছে, সুশান্তের কেপ্রি হাইটসের পালি মার্কেট আবাসনে কিছু অস্বাভাবিক ভুতুড়ে ঘটনার কারণেই ফ্ল্যাট বদলে বান্দ্রার এই আবাসনে চলে আসেন প্রয়াত অভিনেতা৷

সর্বভারতীয় এক সংবাদমাধ্যমের রি’পোর্ট অনুযায়ী, সুশান্তের সঙ্গে বহুদিন থাকার সুবাদে সিবি’আ’ইকে সুশান্তের লা’ইফস্টাইল, বন্ধুবান্ধব, রিয়ার সঙ্গে সুশান্তের সম্পর্ক, সুশান্তের দিদিদের সঙ্গে তাঁর সম্পর্ক নিয়ে অনেক কথা জানিয়েছেন ৷ ২০১৯-এর এপ্রিল মাস থেকে সুশান্ত সিং রাজপুতের পরিচারকের কাজ করছিলেন নীরজ ৷

সে ত’দন্তকা’রীদের জানিয়েছে, সুশান্তের কে’প্রি হাই’টসের পা’লি মার্কেট আবাসনে কিছু অস্বা’ভাবিক ভু’তুড়ে ঘট’নার কারণেই ফ্ল্যাট বদলে বা’ন্দ্রার এই আ’বাসনে চলে আসেন প্রয়াত অভিনেতা ৷ পরিচারক নীরজ জানিয়েছেন, জুন মাসের ৮ তারিখ হঠাৎই রিয়া এসে তাঁর ব্যা’গ গু’ছিয়ে দিতে বলেন, এবং ভীষণ অ’সন্তু’ষ্ট’ভাবে না খেয়ে দেয়ে বাড়ি ছেড়ে চলে যান ৷

রিয়ার যাওয়ার পরই সুশান্তের দিদি মিতু এসে ১২ তারিখ অবধি ওই ফ্ল্যাটে ভাইয়ের সঙ্গে ছিলেন ৷ ১৪ জুন মা’রা যান সুশান্ত৷ ঘ’টনার দিন আটটা নাগাদ নীরজের কাছে ঠা’ন্ডা জল চা’ন সু’শান্ত ৷ নীরজ জানিয়েছেন, ঠা’ন্ডা জল খাওয়া বা’রণ হওয়া সত্ত্বেও সুশান্ত ঠা’ন্তা জল চাইতে ভ’য়ে ‘ভ’য়ে অ’ল্প একটু খা’নিই ঠান্ডা জল দিয়েছিল সে ৷

ওই শেষবারের মতো নাকি ঘ’রের বাইরে দে’খা গিয়ে’ছিল অভি’নেতাকে ৷ এরপর সুশান্তের অন্য পরিচারক তাঁ’কে জুস দিয়ে আসে ৷ পরে সাড়ে দশটা নাগাদ তিনি দুপুরে কি খাবেন জানতে গেলে আর সাড়া মেলেনি ৷ অনেকক্ষণ কে’টে গেলেও সুশান্ত দরজা না খোলায় পরিচারকেরাই ফোন করে সুশান্তের বন্ধু সি’দ্ধার্থ পিঠা’নিকে ডাকে ৷

লাগাতার ফোন করা হয় সুশান্তের ফোনে কিন্তু তা বেজে বেজে কে’টে যায় ৷ তখন ফোন করা হয় সুশান্তের মিতু দিদিকে ৷ তিনি আসার পরই চা’বিওয়ালা ডে’কে দর’জা ভেঙে ভিতরে ঢোকা হয় ৷ নীরজ জানিয়েছেন, দর’জা ভা’ঙার পর প্রথম ঘরে ঢু’কেছিলে সিদ্ধার্থ ৷ অ’ন্ধকার ঘ’রে কিছু দেখা যা’চ্ছিল না ৷

লাই’ট জ্বাল’তেই চোখে পড়ে স্যারের ঝু’লন্ত দে’হ ৷ এছাড়াও সি’বিআ’ইকে একটি উল্লে’খযো’গ্য তথ্য দিয়েছেন নী’রজ ৷ সুশান্তের মৃ’ত্যুর দিন দুয়েক আগেই এক প্যা’কেট সি’গা’রেটে গাঁ’জা ভরে তৈরি করে দিয়ে’ছিল নী’রজ ৷ কিন্তু সুশান্তের মৃ’ত্যুর পর তাঁর ঘ’রে থেকে পাওয়া গিয়েছিল গাঁ’জা সি’গারেটের ফাঁ’কা ব’ক্স ৷ তাতে কোনও সিগা’রেটই অবশিষ্ট ছিল না।

১৪ জুন মা’রা যান সুশান্ত ৷ ঘটনার দিন আটটা নাগাদ নীরজের কাছে ঠান্ডা জল চান সুশান্ত ৷ নীরজ জানিয়েছেন, ঠান্ডা জল খাওয়া বারণ হওয়া সত্ত্বেও সুশান্ত ঠান্তা জল চাইতে ভয়ে ভয়ে অল্প একটু খানিই ঠান্ডা জল দিয়েছিল সে ৷ ওই শেষবারের মতো নাকি ঘরের বাইরে দেখা গিয়েছিল অভিনেতাকে ৷

এরপর সুশান্তের অন্য পরিচারক তাঁকে জুস দিয়ে আসে ৷ পরে সাড়ে দশটা নাগাদ তিনি দুপুরে কি খাবেন জানতে গেলে আর সাড়া মেলেনি ৷ অনেকক্ষণ কে’টে গেলেও সুশান্ত দরজা না খোলায় পরিচারকেরাই ফোন করে সুশান্তের বন্ধু সিদ্ধার্থ পিঠানিকে ডাকে ৷ লাগাতার ফোন করা হয় সুশান্তের ফোনে কিন্তু তা বেজে বেজে কে’টে যায় ৷ তখন ফোন করা হয় সুশান্তের মিতু দিদিকে ৷ তিনি আসার পরই চাবিওয়ালা ডেকে দরজা ভেঙে ভিতরে ঢোকা হয় ৷

নীরজ জানিয়েছেন, দরজা ভাঙার পর প্রথম ঘরে ঢুকেছিলে সিদ্ধার্থ ৷ অন্ধকার ঘরে কিছু দেখা যাচ্ছিল না ৷ লাইট জ্বালতেই চোখে পড়ে স্যারের ঝু’লন্ত দে’হ ৷ এছাড়াও সিবিআইকে একটি উল্লেখযোগ্য তথ্য দিয়েছেন নীরজ ৷ সুশান্তের মৃ’ত্যুর দিন দুয়েক আগেই এক প্যাকেট সিগারেটে গাঁ’জা ভরে তৈরি করে দিয়েছিল নীরজ ৷ কিন্তু সুশান্তের মৃ’ত্যুর পর তাঁর ঘরে থেকে পাওয়া গিয়েছিল গাঁ’জা সিগারেটের ফাঁকা বক্স ৷ তাতে কোনও সিগারেটই অবশিষ্ট ছিল না।

১৪ জুন সুশান্তের ফ্ল্যাটে তাঁর সঙ্গে ছিলেন তিনজন। বন্ধু সিদ্ধার্থ পিঠানি, রাঁধুনি নীরজ সিং, হাউসমেট দীপেশ সাওয়ান্ত। রবিবার এদের টানা জেরা করে সিবিআই। তিনজনের বয়ানে অসঙ্গতি আছে বলে সিবিআই সূত্রে খবর। কে সত্যি বলছে, কে মিথ্যে? রবিবার ৩ জনকে নিয়ে সুশান্তের বান্দ্রার ফ্ল্যাটেও যায় সিবিআই। রবিবারও ১৪ জুনের ঘটনার পুনর্নির্মাণ করা হয়। সোমবার সিবিআই রিয়া চক্রবর্তীকে জিজ্ঞাসাবাদ করতে পারে৷

পরিচারক নীরজ জানিয়েছেন, জুন মাসের ৮ তারিখ হঠাৎই রিয়া এসে তাঁর ব্যাগ গুছিয়ে দিকে বলেন, এবং ভীষণ অসন্তুষ্টভাবে না খেয়ে দেয়ে বাড়ি ছেড়ে চলে যান ৷ রিয়ার যাওয়ার পরই সুশান্তের দিদি মিতু এসে ১২ তারিখ অবধি ওই ফ্ল্যাটে ভাইয়ের সঙ্গে ছিলেন ৷

১৪ জুন মা’রা যান সুশান্ত ৷ ঘটনার দিন আটটা নাগাদ নীরজের কাছে ঠান্ডা জল চান সুশান্ত ৷ নীরজ জানিয়েছেন, ঠান্ডা জল খাওয়া বারণ হওয়া সত্ত্বেও সুশান্ত ঠান্তা জল চাইতে ভয়ে ভয়ে অল্প একটু খানিই ঠান্ডা জল দিয়েছিল সে ৷ ওই শেষবারের মতো নাকি ঘরের বাইরে দেখা গিয়েছিল অভিনেতাকে ৷

Advertisement
Advertisement

Check Also

চালু হল Whatsapp Payment, জানুন কীভাবে ব্যবহার করবেন

Advertisement দুইবছর বিটা মোডে Whatsapp Pay চালানোর পর অবশেষে পেমেন্ট সিস্টেম চালুর অনুমতি প্রিয় জনপ্রিয় …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!