যে অ’প’বাদে মা-মে’য়েকে বেঁ’ধে বে’দম মা’রা হয় – OnlineCityNews

যে অ’প’বাদে মা-মে’য়েকে বেঁ’ধে বে’দম মা’রা হয়

কক্সবাজারের চকরিয়ায় বয়স্ক মা ও তরুণী মেয়েকে ‘গরু’চো’র’ আ’খ্যা দিয়ে নি’র্দয়ভাবে পি’টি’য়েছে একদল দুর্বৃত্ত। পরে কোমরে রশি বেঁধে মা-মেয়েকে প্রকাশ্যে স’ড়কে হাঁ’টিয়ে নিয়ে যাওয়া হয় স্থানীয় চেয়ারম্যানের কা’র্যালয়ে। সেখানে চেয়ারম্যান নিজেও তা’দের আবার প্র’হার করেন বলে অ’ভি’যোগ ওঠে।

নি’র্যা’তনে অ’সুস্থ হয়ে পড়লে পু’লিশ এসে তাদের উ’দ্ধার করে চক’রিয়া উ’পজে’লা স্বাস্থ্য কম’প্লেক্সে ভর্তি করে। শুক্রবার (২১ আগস্ট) দুপুরে চকরিয়া উপ’জে’লার হারবাং প’হর’চাঁদা গ্রা’মে এ ঘটনা ঘটে। সা’মাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ঘট’নার ছবি প্রকা’শের পর এটি শনিবার জানা’জানি হয়।

মা ও মেয়ে বর্ত’মানে চ’করিয়া হা’সপা’তালে চি’কিৎসা’ধীন র’য়েছেন। তাদের শারী’রিক অবস্থা শ’ঙ্কা’মুক্ত নয় বলে জা’নিয়ে’ছেন হাসপাতা’লের চি’কিৎ’সকরা। এ বিষয়ে জা’নতে চাই’লে চ’করিয়া থা’নার হা’রবাং ত’দন্ত কে’ন্দ্রের পরি’দ’র্শক আ’মিনুল ইস’লাম বলেন, শু’ক্রবার স্থা’নীয়রা ফাঁ’ড়িতে খবর দিলে আম'রা ফো’র্স পা’ঠাই।

আমা’দের ফো’র্স গি’য়ে গু’রুতর অ’ব’স্থায় মা-মেয়ে’কে উ’দ্ধার করে নিজে’দের হে’ফাজ’তে নিয়ে আসি। আম'রা তাদের চি’কিৎসার ব্য’বস্থা করেছি। তিনি আর’ও জানান, স্থা’নীয় এক ব্য’ক্তির দায়ের করা গ’রু চু’রির মা’মলায় তা’দের অ’ভিযু’ক্ত ক’রা হয়েছে। অ’ভিযু’ক্তদের মধ্যে মা-মে’য়েসহ চা’রজ’নের বাড়ি প’টি’য়ার শা’ন্তির হাটে।

অ’পরজ’নের বাড়ি চক’রিয়া লাল’ব্রিজ এলাকায়। এ’কা’ধিক প্র’ত্যক্ষ’দর্শী জানিয়েছেন, এ’ক’দফা মা-মেয়ের ওপর নি’র্যাতন চলার পর হারবাং ই’উ’নিয়ন আ’ওয়ামী লীগের স’ভাপতি ও ইউপি চে’য়ারম্যান মি’রানুল ইস’লাম চৌ’কিদার (গ্রাম পু’লিশ) পাঠিয়ে তাদে’র’কে রশি’তে বেঁ’ধে তার কা’র্যাল’য়ে এনে আবার নি’র্মম’ভাবে নি’র্যা’তন করেন।

উ’পর্যু”পরি নি’র্যা’তন শে’ষে চে’য়ার’ম্যা’নের লো’কেরাই ত’দন্ত’কে’ন্দ্রে ফো’ন করে পু’লিশ এনে তা’দের হা’তে মা-মে’য়ে’কে মু’মূর্ষু অব’স্থায় তু’লে দেন। অ’সম’র্থিত এক’টি সূ’ত্র জা’নায়, সুন্দরি মে’য়েকে বিয়ে করতে চে’য়ে ব্য’র্থ হয়ে চো’রের অ’পবা’দে পরি’বার’টিকে মধ্য’যুগীয় কা’য়’দায় নি’পী’ড়ন করা হ’য়েছে। অভি’যোগ স’ম্পর্কে জানতে হারবাং ইউনিয়ন পরিষদের চে’য়ারম্যান মিরানুল ইস’লামের মু’ঠোফোনে যো’গাযোগ করা হয়। কি’ন্তু তার ব্যবহৃত মোবাইল নম্বরটি ব’ন্ধ পাওয়া যায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *