জেল থেকে ফেরার পর যে কারনে মন খারাপ অপু ভাইয়ের – OnlineCityNews
Breaking News
Home / সারা দেশ / জেল থেকে ফেরার পর যে কারনে মন খারাপ অপু ভাইয়ের

জেল থেকে ফেরার পর যে কারনে মন খারাপ অপু ভাইয়ের

Advertisement
Advertisement

ঢাকার উত্তরায় ৬ নম্বর সেক্টরের একটি এলাকায় এক ব্যক্তিকে মা’রধরের ঘটনায় টিকট’ক সেলিব্রেটি অ’পুকে (অ’পু ভাই) কারা’গারে পাঠানো হয়। সে সময় তার চুল ছিল বড় ও সবুজ রঙের। ১৫ দিন কারা’গারে থাকার পর ম’ঙ্গলবার (১৮ আগস্ট) জামিনে মুক্তি পান আপু। তারপর থেকে তার সেই চুল আর দেখা যায়নি। জানা যায় কারা’গার থেকে তার চুল কে’টে ছোট করে দেওয়া হয়েছে।

তার আইনজীবী বলেন, কারা’গারে চুল কে’টে ছোট করায় অ’পুর মন খা’রাপ হয়েছে। এ বি’ষয়ে বুধবার (১৯ আগস্ট) অ’পুর আইনজীবী জাহানারা বেগম বলেন, ‘অ’পু মডেলিং করেন, এটা তার পেশা। প্রয়োজনে তিনি চুল বড় রেখেছিলেন এবং ভিন্ন রং করিয়েছিলেন। কিন্তু কারা’গারে থাকাকালীন তার চুল কে’টে ছোট করা হয়েছে। এতে তার মন খা’রাপ হয়ে গেছে।’

আইন অনুযায়ী হাজতি কারো চুল কে’টে দেওয়া যায় কি না, এ বি’ষয়ে জানতে চাইলে তার আইনজীবী বলেন, ‘এ বি’ষয়টি কারা’ ক’র্তৃপক্ষ ভালো বলতে পারবেন।’ পরে এ বি’ষয়ে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারা’গারের জ্যেষ্ঠ জে’ল সুপার ইকবাল কবীর চৌধুরী জিজ্ঞাসা করলে তিনি বলেন, ‘কারা’গারে একজন আ’সামিকে আনার পর তাকে শৃঙ্খলার মধ্যেই রাখা হয়।

তখন আ’সামি চাইলেই নিজের মতো জীবনযাপন করতে পারেন না। শৃঙ্খলার জন্য প্রত্যেক আ’সামির চুল ছোট করার নিয়ম রয়েছে। এ জন্য তার চুল ছোট করা ‘হতে পারে।’ এর আগে, গত ২ আগস্ট রাজধানীর উত্তরার ৬ নম্বর সেক্টরের একটি রাস্তা দখল করে অ’পু এবং তার কয়েকজন সহযোগী আড্ডা দিচ্ছিলেন।

সে সময় মেহেদী হাসান নামের এক ব্যক্তি ওই সড়ক দিয়ে যাচ্ছিলেন। সে সময় মেহেদী রাস্তা ছাড়তে হর্ন দেন। হর্ন দেওয়াকে কেন্দ্র করে দুপক্ষের মধ্যে বাকবিতণ্ডা হয় এবং পরে হাতাহাতি থেকে এক পর্যায়ে মা’রামা’রির সৃষ্টি হয়। পরের দিন গত ৩ আগস্ট মেহেদীর বাবা বাদী হয়ে মা’রামা’রি ও ছিন’তাইয়ের অ’ভিযোগে উত্তরা পূর্ব থা’নায় অ’পুসহ আট’জনের নাম উল্লেখ করে অ’জ্ঞাত আরো ৩০ জনের বি’রু’দ্ধে একটি মা’মলা করা হয়।

পরে পু’লিশ ওই মা’মলায় অ’পু ও সহযোগী নাজমুলকে গ্রে’’ফতার করে। গত ৪ আগস্ট অ’পু ও নাজমুলকে ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আ’দালতে হাজির করে তাদের তিন দিনের রি’মান্ড আবেদন করলে পরে আবেদনটি নাকচ করে আ’সামিদের কারা’গারে পাঠানো হয়।

১৭ আগস্ট অ’পুকে জামিন দেওয়া হয়। পরে তার মুক্তিনামা কারা’গারে পাঠানো হয়। ম’ঙ্গলবার (১৮ আগস্ট) ঢাকা কেন্দ্রীয় কারা’গার ছাড়া পান অ’পু। তার গ্রামের বাড়ি নোয়াখালীর সোনাইমুড়ী এলাকায়। তিনি ঢাকার দক্ষিণখানের একটি বাসায় থাকতেন।

Advertisement
Advertisement

Check Also

ফেইসবুকে মামুনুল হকের পক্ষে পোস্ট, মাদ্রাসা ছাত্রকে খুঁজছে পু’লিশ

Advertisement Advertisement গোপালগঞ্জের কাশিয়ানী উপজে’লার পারুলিয়া শরীফ পাড়ার বাসিন্দা মোঃ হাবিবুল্লাহ শরীফকে খুঁজছে পু’লিশ। সম্প্রতি …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!