ক্ষতি পুষিয়ে নিতে যা করতে হবে প্রাথমিক শিক্ষকদের?

এ কারণে ইতোমধ্যে ১২ মাসের শিক্ষাবর্ষের প্রায় অ’র্ধে’ক নষ্ট হয়ে গেছে। সে ক্ষতি পুষিয়ে নিতে এবার ‘রি’কভা’রি প্ল্যান-২০২০’ গ্রহণ করছে সরকার। সে আ’লোকে নিজ নিজ শিক্ষা’র্থীদের সিলে’বাস ও কারি’কুলাম নিয়ে ইতোমধ্যে কাজ শুরু ক’রেছে শিক্ষা মন্ত্র’ণালয় এবং প্রাথমিক ও গণ’শিক্ষা মন্ত্রণা’লয়।

জানা গেছে, চলতি বছর প্রাথমিক সমাপনী, জেএসসি-জেডিসি ছাড়াও সব পরীক্ষা বহাল থাকছে। সিলে’বাস ক’মিয়ে শিক্ষা’র্থীদের টানা ২ মাস পড়িয়ে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। প্র’য়োজনে পরীক্ষা’র বিষয় কাটছাঁট ও কিছু বিষয়ে পরীক্ষা না নিয়ে ধারা’বাহিক মূ’ল্যায়ন হতে পারে।

তথ্য মতে, আগামী সেপ্টেম্বরে শিক্ষা’প্রতিষ্ঠান খুলতে পারে- সে বিষয়টি মাথায় রেখে এ পরি’কল্পনা সাজা’নো হচ্ছে। শিক্ষা’প্রতিষ্ঠান খুললে ছুটি কমিয়ে টানা ২ মাস ক্লাস চলবে। এরপর ডি’সেম্ব’রে বা’র্ষিক পরী’ক্ষা নেওয়া হবে। আর সে’প্টেম্বরে না খোলা গেলে আগামী বছরে’র প্রথম ২ মাস বর্তমান শি’ক্ষাবর্ষের সঙ্গে যুক্ত করে শিক্ষা’বর্ষ শেষ করা হবে। সে ক্ষেত্রে বার্ষি’ক পরীক্ষা হবে ফেব্রু’য়ারিতে। আর ২০২১ শি’ক্ষাবর্ষে’র মেয়াদ হবে ১০ মাস।

এ বিষয়ে এন’সিটিবির চেয়ার’ন নারায়ণ চন্দ্র সাহা বলেন, সিলেবাস না কমি’য়ে শি’ক্ষাবর্ষ আগামী ফেব্রু’য়ারি পর্যন্ত বাড়ানোর প্র’স্তাব করেছি’লেন বিশে’ষজ্ঞরা। ফে’ব্রুয়ারি প’র্যন্ত শি’ক্ষা’বর্ষ করা হলে আ’গামী মার্চ থেকে ২০২১ শি’ক্ষাবর্ষ যদি শুরু করা হয় ও ছুটি কমানো হয় তা’হলে একা’ডেমিক কোনো ক্ষ’তি হবে না শিক্ষার্থী’দের।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!