মিডিয়া সত্যতা যাচাই না করে আংশিক তুলে ধরেছে: সাকিব

ক*রো*না*ভা*ই*রা*সে*র কারণে সৃষ্ট সংকটময় পরিস্থিতিতে অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়াতে ক্রিকেটার সাকিব আল হাসান যথন তহবিল সংগ্রহ করছেন, এমন সময়ই গণমাধ্যমে খবর আসতে থাকে যে, সাতক্ষীরায় সাকিবের অ্যাগ্রো ফার্মের শ্রমিকরাই কয়েকমাস ধরে বেতন বঞ্চিত। বেতনেরে দাবিতে গত ২০ এপ্রিল বিক্ষোভও করেন ওই শ্রমিকরা।গণমাধ্যমের এমন প্রতিবেদন প্রকাশের পর সমালোচিত হলেও সাকিবর বক্তব্যা পাওয়া যাচ্ছিল না। বুধবার নিজের অফিসিয়াল ফেসবুক পেজে তার জাবাব দিয়েছেন বিশ্ব সেরা অলরাউন্ডার।বিলম্বে বক্তব্য প্রসঙ্গে সাকিব বলেন, ‘বিগত কয়েক দিনে এগ্রো ফার্মে ঘটে যাওয়া ঘটনা নিয়ে আমা’র বিলম্বিত বক্তব্যের জন্য আমি আন্তরিকভাবে দুঃখিত। সব তথ্য ঠিকমত যাচাই-বাছাই করে সত্যটা আপনাদের সামনে তুলে ধরতে চেয়েছি বলেই এই বিলম্ব। যদিও এগ্রো ফার্মের সাথে আমা’র নাম সরাসরি যুক্ত, আমা’র পেশাগত ব্যস্ততার কারনে আমা’র অন্যান্য কোম্পানিগুলোর মতো এই কোম্পানিটিও অন্যান্য মালিক/অংশীদারদের দ্বারাই পরিচালিত হয়ে থাকে। বেশিরভাগ সময়েই আমা’র জন্য ব্যবসার দৈনন্দিন কর্মকা’ণ্ড তদারকি বা সরাসরি অফিস পরিদর্শন করা সম্ভব হয়ে উঠে না।’

তিনি আরও বলেন, ‘আপনারা সবাই জানেন, এবছরের শুরু থেকে আমি আমেরিকায় অবস্থান করছি আমা’র পরিবারের সাথে, পরিবারের নতুন অতিথির আগমনের অপেক্ষায়। এই সময়ের মধ্যে এগ্রো ফার্মের বর্তমান ব্যবসায়িক অবস্থা আমা’র জানা ছিলো না এবং শ্রমিক অ*স*ন্তোষের ব্যাপারটি আমি মিডিয়ার মাধ্যমেই জানতে পারি। অন্যান্য মালিকেরা এক্ষেত্রে আমাকে বিগত কয়েক মাসের সকল তথ্য যথাযথভাবে জানাতে ব্যর্থ হয়েছে। কিন্তু তারা আমাকে অবহিত করেছে, কিছু সংখ্যক কর্মচারী যারা কর্মরত ছিলো তাদের বেতন আগামী ৩০ এপ্রিলের মধ্যেই দিয়ে দেয়া হবে।‘এক্ষেত্রে উল্ল্যেখযোগ্য যে এ বছরের জানুয়ারি মাসের শেষেই প্রায় সব কর্মচারীকে চাকরি থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়। এপ্রিলের ৩০ তারিখ পর্যন্ত অপেক্ষা করার প্রতিশ্রুতি দিয়েও কর্মচারীরা হঠাৎ রাস্তায় নেমে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করায় ধারনা করা যায়, কারো গো’পন ও কু*প্র*রোচনাতেই এমনটি হয়েছে,’ যোগ করেন তিনি।

সাকিব বলেন, ‘তবে, যখনই আমি বুঝতে পারি যে এটা একটা গুরুত্বপূর্ণ বিষয়, তখনই আমি কোম্পানি এবং বাকি অংশীদারদের সাহায্য ছাড়াই আমা’র নিজের তহবিল থেকে তাৎক্ষনিক বকেয়া বেতন পরিশোধ করি। আমি বিশ্বাস করি এটি কোম্পানির অভ্যন্তরীণ ব্যাপার এবং এটা নিজেদের মধ্যেই রাখা উচিৎ ছিলো। কিন্তু আমি বিস্মিত হয়েছি এটা দেখে যে কর্মচারীরা মাসের শেষে বেতন নিতে সম্মতি জানিয়েও তারা আন্দোলনে অংশ নিলো!’‘অনেকের মত আমিও এই ম*হা*মারি মোকাবেলায় তহবিল সংগ্রহ করে আমা’র কর্মচারীদের মতই অন্যান্য অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ানোর চেষ্টা করছি, কিন্তু আমি এটা বুঝে উঠতে পারছি না, মানুষ কেন ভাবছে আমি আমা’র কর্মচারীদের বঞ্চিত করবো যাদের আমি গত ৩ বছর ধরে বেতন দিয়ে আসছি,’ যোগ করেন তিনি।মিডিয়া ব্যাপারটির সত্যতা যাচাই না করেই আংশিকভাবে সবার সামনে তুলে ধরেছে অ’ভিযোগ করে সাকিব বলেন, ‘আমি সত্যিই মর্মাহত। আংশিক মিথ্যা এবং বি’ভ্রান্তিমূলক সংবেদনশীল শিরোনামগুলির চেয়ে তাদের সত্যতা যাচাই করে নেয়াই উচিত ছিলো।’

তিনি আরও বলেন, ‘সত্য অনুসন্ধান করে সঠিক তথ্য মানুষকে জানানো মিডিয়ার বড় দায়িত্ব, তা না হলে অযথাই আমা’র মতো অনেক মানুষই এধরনের খবরের জন্য ক্ষতিগ্রস্ত হবে। তারা শুধুমাত্র আমাকে দোষারোপ না করে পুরো ব্যাপারটি সকল অংশীদারের নামসহ সবার সামনে তুলে ধরতে পারতো।’‘শুধু আমি না, কেউই এ ধরনের মিথ্যা অ’ভিযোগ প্রত্যাশা করে না। আশা করি মিডিয়া এবং সাংবাদিক ভাই-বোনেরা সংবাদ সকলের কাছে সঠিকভাবে উপস্থাপনের ক্ষেত্রে আরো যত্নশীল হবেন,’ যোগ করেন তিনি।বর্তমান সংকটকে সামনে রেখে আরও গুরুত্বপূর্ণ কাজ করা প্রয়োজন উল্লেখ করে সাকিব বলেন, ‘যেকোনো ধরনের বি’ভ্রান্তিকর তথ্য, গুজব এবং মিথ্যার বি’রুদ্ধে সজাগ ও সোচ্চার হওয়া দরকার।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!