কি কারণে বাংলাদেশের ছাই নিয়ে কাড়াকাড়ি করছে গোটা বিশ্বে! – OnlineCityNews

কি কারণে বাংলাদেশের ছাই নিয়ে কাড়াকাড়ি করছে গোটা বিশ্বে!

মহামারি করো’নাভা’ইরাস প’রিস্থিতিতে র’প্তানি আ’য়ে প্রথম তৈ’রি পো’শাক এবং দ্বি’তীয় বড় আয়ের খাত চা’মড়া র’প্তানিতে বড় ধরনের ধস নাম’লেও প্রতিকূল এই সময়ে’ দেশের সাত ‘পণ্য জয় করেছে” করো’না। এই সা’ত পণ্যের ম’ধ্যে রয়েছে’ ওষুধ’, পাট ও পাটজাত পণ্য, আসবাব, কার্পেট, চা, সবজি ও ছাই।

রপ্তানি উন্নয়ন’ ব্যুরো ইপিবির ২০১৯-২০ অ’র্থবছরের রপ্তানি আয়ের ‘পরিসংখ্যানে এ ত”থ্য উঠে এসেছে। এতে দেখা যায়, দেশের স্বাস্থ্য খাতের পণ্য ওষুধ রপ্তানিতে প্রবৃদ্ধি হয়েছে ‘প্রায় সাড়ে ৪ শতাংশ, পাট ও পাটজাত পণ্যে প্রবৃদ্ধি হয়েছে ১০ শতাংশের বেশি। সবজি রপ্তা’নিতে প্রবৃদ্ধি ‘হয়েছে ৬৪.৫৩ শতাংশ, চা রপ্তানিতে ১০’.৬৪ ‘শতাংশ, কার্পেটে ৮.৪১’ শতাংশ আর ছাই রপ্তানিতে প্রবৃদ্ধি হয়েছে ৬৪.৫৩ শতাংশ।

রীতিমতো বাংলাদেশের ছাই নি’য়ে বিশ্বে কাড়াকাড়ি শুরু হয়ে’ছে। পাটখড়ি থে’কে উৎপাদিত একটি প’ণ্য হচ্ছে এই ছাই, যা আসলে চারকোল বা অ্যাকটিভেটেড কার্বন। কারখানার বিশেষ চু’ল্লিতে পাটকাঠি’ পুড়িয়ে ছাই করা হয়। তি’ন থেকে চার দিন পোড়ানোর পর চুল্লির ঢাকনা খুলে ছাই সংগ্রহ করে ঠাণ্ডা ক’রা লাগে। এ ছাড়া কাঠের গুঁড়া, নারিকেলের ছোবড়া ও ‘বাঁশ থেকেও ছাই ‘বা চারকো’ল উৎপাদ’ন হয়ে থাকে। তবে দেশে এ’খন পর্যন্ত পা’টখড়ি থেকেই’ চারকো’ল উৎপাদিত হচ্ছে।

বাংলাদেশ থে’কে ২০০৯-১০ সালে এই পণ্য র”প্তানি শুরু হয়। এসব ছাইয়ের ম’ধ্যে গড়ে ৭৫ শ’তাংশ পর্যন্ত কার্বন উপাদান থাকে। টনপ্রতি ৫০০ থেকে ১ হাজার ৭’০ ডলারে রপ্তানি হচ্ছে এই পণ্য।’ পাটখড়ির ছাইয়ে থা’কা কার্বন ‘পাউডার দিয়ে প্রসাধনসামগ্রী, ব্যাটারি, কার্বন পেপার, পানির ফিল্টারের ‘উপাদান, দাঁত পরিষ্কার ‘করার ওষুধ ও ‘ফটোকপি মেশিনের কালি তৈরি করা হচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *