যে কারণে আসিফ আকবর বললেন সিনিয়রদের গালাগাল দেওয়ার মানে কী – OnlineCityNews

যে কারণে আসিফ আকবর বললেন সিনিয়রদের গালাগাল দেওয়ার মানে কী

করো’না সংক্রমণ রোধে শিল্পীরা দীর্ঘ দিন ধরে ঘরে বসে আছেন। ঠিক এই মুহূর্তে শিল্পীদের একাংশ ঘোষণা দিয়েছেন—রয়্যালিটি ছাড়া অনলাইন কোনো অনুষ্ঠানে অংশ নেবেন না। এর পর গীতিকাররাও রয়্যালিটি নিয়ে প্রশ্ন তুলেন। এ নিয়ে তৈরি হয়েছে পক্ষ-বিপক্ষ। বিষয়টি নিয়ে এবার মুখ খুললেন সংগীতশিল্পী আসিফ আকবর।

আসিফ আকবর তার ফেসবুকে দীর্ঘ একটি স্ট্যাটাস দিয়েছেন। এতে তিনি লিখেন—সম্প্রতি কুমার বিশ্বজিৎদা একটি সাক্ষাৎকারে শিল্পীদের শিল্পমানের দিকে নজর রাখতে বলেছেন। তার প্রতিষ্ঠিত হওয়ার গল্পও সেখানে করেছেন। বাংলা সংগীতে সিনিয়রদের অবদান স্মরণ করেছেন সশ্রদ্ধ চিত্তে।

জুনিয়রদের আহ্বান জানিয়েছেন শিল্পের মান বজায় রাখতে। তিনি চাননি শিল্পীদের বালখিল্যতার কারণে সাধারণ মানুষের সামনে শিল্পমান কিংবা শিল্পের মানুষগুলো ছোট হয়ে যাক। তারপর বেগম সুলতানার অনুসারীরা বিশ্ব’দা সহ সম্মানিত সিনিয়রদের একহাত নিয়ে নিলো ফেসবুক স্ট্যাটাসে।

‘বেগম সুলতানার’ অনুসারীদের বক্তব্য উল্লেখ করে আসিফ লিখেন—দেশের সংগীতে নাকি তাদের কোনো অবদান নাই। তারা নিজেরা ভিক্ষা করেছেন, বর্তমান প্রজন্মকেও ভিক্ষুক হিসেবে দেখতে চায়। ফ্রিতে গান না গাওয়ার আন্দোলন চলে গেল কপিরাইট ইস্যুতে।

এক শ্রেণীর তরুণ শিল্পী যাদের নিজেদের কোনো আলো নেই, অন্যের গান গেয়ে ক্যারিয়ার চালাচ্ছে, তারা তীব্র কটাক্ষে জর্জরিত করা শুরু করলো সিনিয়রদের। সিনিয়র শিল্পীদের গালাগাল দেওয়া নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন আসিফ। এ বিষয়ে তিনি লিখেন—একশ শিল্পীর এই দাবিতে প্রশ্ন উঠেছে তাহলে কি তারা এতদিন ফ্রি গেয়েছে?

না গাইলে প্রশ্ন উঠবে কেন? সিনিয়রদের গালাগাল দেওয়ার মানে কি? টাকা ছাড়া গাইবে না তো গাইবে না, এটাতো ভালো। আড়মোড়া ভেঙে সন্ধ্যায় বিভিন্ন টেলিভিশন চ্যানেলে খবর নিয়ে দেখলাম এই একশজনের অধিকাংশই পনেরো থেকে বিশ হাজার টাকার মধ্যে এতদিন শোগুলো করেছে মিউজিশিয়ানসহ, তাজ্জব বনে গেলাম।

স্পন্সররাও এদের কারণে উপযুক্ত পেমেন্ট দিতে চায় না। ঘুরেফিরে তারাই সিনিয়র গীতিকার সুরকার গায়ক-গায়িকাদের গানই গায়, পেমেন্ট হলে পেটে ভাত। পাইকারী হারে টিভি শো করে ষ্ট্যান্ডার্ড নামিয়েছে শূন্যের কোঠায়। এবার বেগম সুলতানার আসল চেহারা বের হলো। তবে এসব ঘটনার সঙ্গে কোনোভাবেই আসিফ জড়িত নন। কিন্তু এই কাঁদা ছোড়াছুড়ির বাইরে থাকতে চেয়েও পারেননি বলে জানিয়েছেন আসিফ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *