অবশেষে চীনা ভ্যাকসিনের ২য় ট্রায়াল বাংলাদেশে – OnlineCityNews

অবশেষে চীনা ভ্যাকসিনের ২য় ট্রায়াল বাংলাদেশে

করো’নাভাই’রাস বা কোভিড-১৯ নিয়ে বিভিন্ন দেশ গবেষণা চালিয়ে যাচ্ছে। যু’ক্তরাষ্ট্র ও চীনসহ কয়েকটি দেশ ইতিমধ্যে এই রোগের ভ্যাকসিনের ট্রায়াল শুরু করেছে। এর মধ্যে চীনা ভ্যাকসিন প্রথম ট্রায়াল সম্পন্ন করেছে। তাদের ভ্যাকসিনের দ্বিতীয় ট্রায়াল বাংলাদেশে হতে পারে।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম আজাদ শুক্রবার (২৬ জুন) এ তথ্য জানিয়েছেন। বাংলাদেশ হেলথ রিপোর্টার্স ফোরামের আয়োজনে ভা’র্চুয়াল কনফারেন্সে তিনি এ তথ্য জানিয়েছেন।

ডা. আবুল কালাম আজাদ বলেন, ‘চীনে আবিষ্কৃত করো’নাভাই’রাস প্রতিরোধী ভ্যাকসিনের দ্বিতীয় ধাপের ট্রায়াল বাংলাদেশে হতে পারে। এই ট্রায়ালের সূত্র ধরে বাংলাদেশেও এর উৎপাদন শুরু হতে পারে। এটা বাংলাদেশের মানুষের জন্য করো’না মোকাবিলায় আরেক ধাপ সাফল্য বয়ে আনবে।’

ডা. আবুল কালাম আজাদ করো’না পরিস্থিতি নিয়ে বলেন, ‘আগে দেশে আ’ক্রান্ত একজন থেকে আরও দু’জনের বেশি হারে এই ভাই’রাস ছড়াতে পারত। কিন্তু এখন সেই রিপ্রডাকশন রেট বা আর-রেট নেমে এসেছে ১.০৫-এ। এটা খুবই ভালো লক্ষণ। এখন নিচে নামাতে পারলে দুশ্চিন্তা অনেকটাই কমে যাবে। তাছাড়া এখনও প্রতিদিন সংক্রমণের যে সংখ্যা পাওয়া যাচ্ছে তা অনেকটা স্থিতিশীল অবস্থায় রয়েছে।’

এদিকে গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে ৩ হাজার ৮৬৮ জন করো’না আ’ক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়েছেন। এ নিয়ে দেশে মোট আ’ক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়াল ১ লাখ ৩০ হাজার ৪৭৪ জনে। এছাড়া গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ৪০ জনের মৃ’ত্যুর মধ্য দিয়ে মোট মৃ’তের সংখ্যা দাঁড়াল ১ হাজার ৬৬১ জনে।

এর আগে বৃহস্পতিবার সর্বশেষ তথ্যে বলা হয়েছিল, ২৪ ঘণ্টায় দেশে ৩ হাজার ৯৪৬ জন করো’না আ’ক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়। এ নিয়ে ওই দিন দেশে মোট আ’ক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়ায় ১ লাখ ২৬ হাজার ৬০৬ জনে। এছাড়া ২৪ ঘণ্টায় ৩৯ জনের মৃ’ত্যু হয়। এ মৃ’ত্যুর মধ্য দিয়ে মোট মৃ’তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছিল ১ হাজার ৬২১ জনে।

শুক্রবার (২৬ জুন) দুপুরে করো’নাভাই’রাস নিয়ে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নিয়মিত অনলাইন বুলেটিনে এ তথ্য জানান সংস্থাটির অ’তিরিক্ত মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা।

দেশে একদিনে সর্বোচ্চ মৃ’ত্যুর রেকর্ড আছে ৫৩ জনের। সে তথ্য জানানো হয় ১৬ জুনের বুলেটিনে। আর সর্বোচ্চ শনাক্তের রেকর্ড আছে ৪ হাজার ৮ জনের। এ তথ্য জানানো হয় ১৭ জুনের বুলেটিনে।

বুলেটিনে বরাবরের মতো করো’নাভাই’রাস থেকে সুরক্ষিত থাকতে সবাইকে সাবান দিয়ে হাত ধোয়া, মুখে মাস্ক পরা এবং অন্যান্য স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার আহ্বান জানান ডা. নাসিমা।

বাংলাদেশে গত ৮ মা’র্চ প্রথম করো’না ভাই’রাসের রোগী শনাক্ত হলেও প্রথম মৃ’ত্যুর খবর আসে ১৮ মা’র্চ। দিন দিন করো’না রোগী শনাক্ত ও মৃ’তের সংখ্যা বাড়ায় নড়েচড়ে বসে সরকার। ভাই’রাসটি যেন ছড়িয়ে পড়তে না পারে সেজন্য ২৬ মা’র্চ থেকে বন্ধ ঘোষণা করা হয় সব সরকারি-বেসরকারি অফিস। কয়েক দফা বাড়িয়ে এ ছুটি ৩০ মে পর্যন্ত করা হয়। ছুটি শেষে করো’নার বর্তমান পরিস্থিতির মধ্যেই ৩১ মে থেকে দেশের সরকারি-বেসরকারি অফিস খুলে দেয়া হয়। তবে বন্ধ রাখা হয়েছে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান।

এদিকে করো’নাভাই’রাস বা কোভিড-১৯ এ যু’ক্তরাষ্ট্রে একদিনে আ’ক্রান্তের সব রেকর্ড ভেঙে গেছে। সর্বশেষ ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে আ’ক্রান্ত হয়েছেন ৪০ হাজার ৫০০ জন। করো’না মহামা’রি শুরু হওয়ার পর থেকে দেশটিতে এটি এক দিনে সর্বোচ্চ শনাক্তের সংখ্যা। এদিন মৃ’ত্যু হয়েছে ২ হাজার ৪৩০ জনের।

যু’ক্তরাষ্ট্রের সংবাদমাধ্যম সিএনএন এর খবরে বলা হয়েছে, চলতি সপ্তাহে দেশটির গুরুত্বপূর্ণ শহর টেক্সা’স, আলাবামা, অ্যারিজোনা, ক্যালিফোর্নিয়া, ফ্লোরিডা, আইডাহো, মিসিসিপি, মিসৌরি, নেভাডা, ওকলাহোমা, দক্ষিণ ক্যালিফোর্নিয়া ও ওয়াইমিং অঙ্গরাজ্যে আবারও ভ’য়াবহভাবে করো’না শনাক্ত শুরু হয়েছে।

প্রকাশিত তথ্যে দেখা যাচ্ছে, যু’ক্তরাষ্ট্রে এখন পর্যন্ত ২৫ লাখেরও বেশি মানুষের করো’না শনাক্ত হয়েছে। সরকারি হিসেবে এর মধ্যে মৃ’ত্যু হয়েছে প্রায় ১ লাখ ২৬ হাজার মানুষের। সেরে উঠেছেন সাড়ে ১০ লাখ ৫২ হাজার। করো’নায় মৃ’ত্যু ও শনাক্তের দিক থেকে যু’ক্তরাষ্ট্র সারা বিশ্বের মধ্যে শীর্ষে রয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *