বিয়ে করতে এসে ম্যাজিস্ট্রেটের কাছে যে কারণে ধরা খেলেন কাজী ও কনের বাবা

ফেনী শহরের রামপুর এলাকায় বাল্যবিয়ের দায়ে কাজীর ২০ হাজার জ’রিমানা ও কনের বাবার ১৫ দিনের জে’ল দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আ’দালত। শুক্রবার দুপুরের দিকে ফেনী জে’লা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট তাসলিমা শিরিন ঘটনাস্থলে গিয়ে এ রায় ঘোষণা করেন।

আ’দালতের একটি সূত্র জানায়, শুক্রবার দুপুরের দিকে শহরের রামপুর হাফেজ উকিল বাড়ি এলাকায় জহির উদ্দিনের বাড়িতে বাল্যবিয়ের খবর পেয়ে অ’ভিযান চালান আ’দালত।

এ সময় দেখা যায় ওই বাড়ির ভাড়াটিয়া জসিম উদ্দিনের মে’য়ে রামপুর বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেণির এক ছা’ত্রীর সঙ্গে একই বাড়ির অন্য ভাড়াটিয়া আলী আহাম্ম’দের ছে’লে আনোয়ারের বিয়ের আয়োজন চলছে।

নির্বাহী ম্যাজেস্ট্রেট আসার খবর শুনে পাত্র আনোয়ার পালিয়ে যান। পরে বাল্যবিয়ের আয়োজন করায় ফেনী পৌরসভা’র ১৮নং ওয়ার্ডের কাজী নিকাহ রেজিস্ট্রার আবদুল মতিনকে ২০ হাজার টাকা জ’রিমানা করেন ভ্রাম্যমাণ আ’দালত। একই সময় মে’য়ের

বাবা মো. জহির উদ্দিনকে ১৫ দিনের বিনাশ্রম কারাদ’ণ্ডাদেশ দেন। এ সময় ফেনী পৌরসভা’র ১৮নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর সাইফুর রহমান ও ১৬নং ওয়ার্ড বাউন্সিলর আমির হোসেন বাহারসহ আইনশৃংখলা বাহিনীর সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!