এবার করো’নার পরেও অনলাইন ক্লাস নিয়ে যা জানালেন শিক্ষামন্ত্রী

করো’নাভা’ইরাস চলে যাওয়ার পরও দেশের সব বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে অনলাইন ক্লাস চলমান থাকবে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। মঙ্গলবার রাতে এ-টু-আই-এর আয়োজনে অনলাইন ক্লাসরুম উদ্বোধন বিষয়ক এক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব বলেন। সভাপতিত্ব করেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘আমা’দের অনলাইন শিক্ষা ব্যবস্থায় কয়েক বছর পর যেতেই হত, করো’না পরিস্থিতির কারণে আমা’দের আগে করতে হলো। রূপকল্প-২০৪১ ও চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করতে হলে আমা’দের জনসংখ্যাকে জনসম্পদে রূপান্তিত করতে হবে। শিক্ষার্থীদের নতুন দক্ষতা অর্জনের প্রয়োজন রয়েছে। সুতরাং অনলাইন শিক্ষাই তাদের জন্য বড় সহায়ক হিসেবে কাজ করবে’।

বিশ্বের অনেক বিশ্ববিদ্যালয়ে আন্তর্জাতিক পর্যায়ে অনলাইনে শিক্ষা কার্যক্রমের উদাহরণ রয়েছে উল্লেখ করে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, পাঠ্যবইয়ের কনটেন্ট ই-কনটেন্টে রূপান্তিরিত করতে হবে। আমা’দের মাইন্ডসেট পরিবর্তন করতে হবে। ১০ শতাংশ শিক্ষার্থী যাদের অনলাইন শিক্ষায় সুযোগ (অ্যাকসেস) দিতে পারছি না। কীভাবে দেওয়া যাবে, সেক্ষেত্রে লোন দেওয়া যায় কিনা, ইন্টারনেটের খরচ কমানো যায় কিনা সেটা কীভাবে বাস্তবায়ন করা যায় শিক্ষা মন্ত্রণালয় এবং আইসিটি মন্ত্রণালয় তা নিয়ে কাজ করছে। এই অনলাইন ক্লাসের প্লাটফর্ম আরও কত ভালো করা যায় তা নিয়ে ভাবতে হবে উল্লেখ করে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘শিক্ষক প্রশিক্ষণ বড় বিষয়।

শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান নওফেল বলেন, ‘চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের জন্য বিশ্ববিদ্যালয়গুলো শুধু কাজ করবে তা নয় সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানকে কাজ করবে হবে। যে অবকাঠামো তৈরি হয়েছে, তার যথাযথ ব্যবহার করতে হবে।

অনুষ্ঠানে জানানো হয়, শিগগিরই এই ক্লাসরুম পুরোপুরি চালু হবে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইবিএ পরীক্ষামূলকভাবে অনলাইন ক্লাসরুম ব্যবহার শুরু করেছে। এই ব্যবস্থায় পরীক্ষা নেওয়া যাবে বলে জানান আইবিএ পরিচালক সৈয়দ ফরহাদ আনোয়ার। লাইভ ক্লাসে শিক্ষার্থীরা তাদের প্রশ্ন করে সরাসরি উত্তর জানতে পারবেন শিক্ষকের কাছ থেকে।

তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, ‘১০ শতাংশ শিক্ষার্থী অনলাইন শিক্ষা কার্যক্রমের বাইরে রয়েছে। শিক্ষার্থীদের জন্য বা সুদহীন ঋণ দেওয়া যায় কিনা তার ব্যবস্থা নেওয়া হবে। আম'রা ওয়ান স্টুডেন্ট ওয়ান ল্যাপটপ লোনও দিতে পারি।

অনলাইন অনুষ্ঠানে আরও যুক্ত ছিলেন তথ্যও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের সিনিয়র সচিব এন এম জিয়াউল আলম, মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের সচিব মো. মাহবুব হোসেনসহ বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য এবং সংশ্লিষ্টরা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!