রান্নাঘরে গ্যাস সিলিন্ডারের উপর থেকে হটাৎ বেরিয়ে আসল বিশাল কোবরা সাপ, ঘটল বিপত্তি, তুমুল ভাইরাল ভিডিও – OnlineCityNews
Breaking News
Home / অন্যান্য / রান্নাঘরে গ্যাস সিলিন্ডারের উপর থেকে হটাৎ বেরিয়ে আসল বিশাল কোবরা সাপ, ঘটল বিপত্তি, তুমুল ভাইরাল ভিডিও

রান্নাঘরে গ্যাস সিলিন্ডারের উপর থেকে হটাৎ বেরিয়ে আসল বিশাল কোবরা সাপ, ঘটল বিপত্তি, তুমুল ভাইরাল ভিডিও

Advertisement

সাপ সবসময়ই এক রহস্যময় জাতি। পুরাকালে অনেক উপকথাতেই সাপের বিভিন্ন অলৌকিক ক্ষমতার পরিচয় পাওয়া গেছে। বলা হয় সাপ সম্মোহন ক্ষমতার সাহায্যে জীবজন্তুকে বশ করে শিকার ধরে।

এমনকি হিন্দু ধর্মে সাপকে দেবী মা মনসার বাহন হিসেবে পূজা করা হয়। এমনকি মহাদেবের গলাতেও দেখা যায় বাসুকিনাগ কে। হিন্দু ধর্মের স্বয়ং বিষ্ণু শায়িত রয়েছেন শেষ নাগের কোলে,

সুতরাং সাপকে যে পুরাকালে অনেক বড় আসনে বসানো হয়েছিল সেই সম্পর্কে কোন সন্দেহ নেই। কিন্তু বর্তমানে সাপকে অলৌকিক ক্ষমতার অধিকারী হিসেবে না মানা হলেও তার বিষকে ভয় করেন সবাই। কিন্তু পৃথিবীতে বিষধর ও বিষহীন,

দুই ধরনের সাপই রয়েছে। সাপ এমনিতেই নিরীহ প্রাণী, দৃষ্টি শক্তি দুর্বল। সাপের অনুভূতি ক্ষমতা প্রবল হওয়ায় সে একমাত্র তার মাধ্যমে নিজের রক্ষা করে এবং শিকার ধরে।

এহেন অবস্থায় সাপ একমাত্র ভয় পেলে বা আত্মরক্ষার জন্যই কাউকে ছোবল মা’রতে থাকে। কিন্তু মানুষ না বুঝেই বহু সাপকে মেরে ফেলেন।

এজন্যই বর্তমানে তৈরি হয়েছে বহু রেস্কিউ টিম, সর্প রক্ষকরা এগিয়ে এসেছেন সাপকে বাঁ’চানোর কাজে। কিন্তু সর্পরক্ষক হওয়া মোটেই সহজ কাজ নয়।

অনেক কম বয়স থেকেই এই কাজের জন্যে ট্রেনিং নিতে হয়। বিশেষত সাপ খুবই আক্রমনাত্মক প্রাণী, রেগে গেলে যে কোন সময় সে দংশন করে দেয়।

বিষের জ্বালায় যে কোন মানুষের মৃ’ত্যু পর্যন্ত হতে পারে। তাই সে ক্ষেত্রে সাপ সম্পর্কে জানা এবং সেই সম্পর্কিত সমস্ত বিজ্ঞানের শাখা গুলি জানা খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

সর্পরক্ষক মির্জা মহাম্মদ আরিফ অত্যন্ত জনপ্রিয়। বিশেষ করে তার ভিডিওগুলি সবথেকে বেশি ভাইরাল হয়। তাকে অধিকাংশ মানুষই ভালোবাসেন।

তার ভিডিওতে বারবার ফুটে উঠেছে তার মানবিকতার দিকটি। তবে এসব কাজে প্রাণহানির আশ’ঙ্কা প্রবল। যদি কোন কারণে গৃহস্থবাড়িতে রান্না ঘরের মধ্যেই সাপ ঢুকে যায় তার ফল হতে পারে মা’রাত্মক।

কিছুদিন আগেই ভাইরাল একটি ভিডিওতে দেখা গেছিল, রান্নাঘরে গ্যাস সিলিন্ডারের তলায় একটি সাপ ঢুকে গেছে, শেষ পর্যন্ত অনেক কৌশলে তাকে বের করা সম্ভব হয়েছিল।

কিন্তু এবারের কাণ্ডটি আরো জটিল। সম্প্রতি একটি ভাইরাল ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, রান্না ঘরের মধ্যে একটি বিশাল বড় বিষধর কোবরা সাপ ঢুকে গেছে।

সাপটিকে মির্জা মোঃ আরিফ ধ’রার চেষ্টা করলে সাপটি ক্ষিপ্র ভঙ্গিতে পালাতে থাকে। একপর্যায়ে অসম্ভব ক্রুদ্ধ হয়ে গ্যাসের সিলিন্ডার এর উপর থেকে কড়াই ফেলে দেয় সাপটি।

এহেন অবস্থায় সাপটিকে ধ’রা ছিল প্রায় অসম্ভব। কিন্তু মির্জা মোহাম্মদ আরিফ নিজের প্রাণ সংশয় করে সাপটিকে শেষ পর্যন্ত ধরতে সক্ষম হন।

সাপটিকে বাইরে এনে মির্জা মহাম্মদ আরিফ অনেক গুরুত্বপূর্ণ তথ্য প্রদান করেন। এমনকি তিনি এও বলেন, মানুষজন এরকম সাপ দেখলে যেন সঙ্গে সঙ্গে সর্প রক্ষকদের খবর দেয়।

কারণ এইসব সাপ যথেষ্ট বিষধর, যেকোনো মুহূর্তে বিপদ ঘটতে পারে। কিন্তু ভয় পেয়ে কে যেন সাপ গুলিকে আঘাত না করেন, কারণ তারাও অবলা জীব।

এমনকি সাপকে দুধ খাওয়ানো নিয়ে শোনা যায় নানা রকম কথা, এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, সাপ কখনোই দুধ ভালোবাসে না তার সামনে দুধ রাখলে সে জল ভেবে কালো দেখে, এবং জল ভেবে খেয়ে নেয়।

দুধ খেলে সাপের গ্যাস্ট্রোইনটেস্টাইনাল অর্গান ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে। তার তথ্যগুলি শুনে মানুষ অত্যন্ত সমৃদ্ধ হন।শেষ পর্যন্ত তিনি সাপটিকে একটি নিরাপদ ভাবে পলিথিনের পাত্রে ঢুকিয়ে নেন।

হাজার হাজার মানুষ ভিডিওটি লাইক করেছে। কমেন্ট বক্সে সবাই তার জন্য ঈশ্বরের কাছে প্রার্থনা করেছেন যেন তিনি এভাবেই কাজ চালিয়ে যেতে পারেন।

বিশেষ করে মির্জা মহাম্মদ আরিফ এর মত সর্প রক্ষকরা সাপের প্রজাতি গুলিকে বাঁ’চানোর গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন।

কারণ অধিকাংশ মানুষই সাপকে বিষধর এবং ভয়ঙ্কর প্রাণী ভেবে মেরে ফেলে, সেক্ষেত্রে সর্প রক্ষকরাই মানুষকে সঠিক জ্ঞান দান করেন এবং বিরল সাপগুলিকে রক্ষা করেন।

তারা সব জায়গায় মানুষকে সাপ সম্পর্কে সচেতন করেন এবং সঠিক শিক্ষা প্রদান করেন। এই সর্প রক্ষকরা উপযুক্ত ট্রেনিং প্রাপ্ত হন।

তাই তারা প্রত্যেক ভিডিওতে বলে দেন সাধারণ মানুষ যেন এইরকম ভাবে সাপ ধ’রার চেষ্টা না করে, নচেৎ ফল হতে পারে মা’রাত্মক।

এমনকি তারা সাপের বিষের প্রকৃতি, এমনকি আ’হত সাপের সেবা শুশ্রূষা করে তাকে বাঁচিয়েও থাকেন। সর্প রক্ষকদের কুর্ণিশ জানাই তাদের এই মহান কর্মের জন্য।

পৃথিবীতে আজও এইসব মানুষদের জন্যই বাস্তুতন্ত্রের ভারসাম্য রয়েছে সংরক্ষিত। পৃথিবীতে প্রত্যেকটি পশুর মধ্যে রয়েছে খাদ্য-খাদক সম্পর্ক, কিন্তু মানুষ মূর্খতার সাথে বন্য প্রাণীদের মেরে তাদের অস্তিত্ব করেছে বিপন্ন।

এর ফলে দেখা যাচ্ছে পৃথিবীতে এত সমস্যা। কিন্তু এখনো সময় আছে মানুষের সচেতন হওয়া প্রয়োজন নচেৎ ফল হবে মা’রাত্মক

Advertisement
Advertisement

Check Also

বড় সজারুকে খে-তে গিয়ে ম-রতে হলো বি-শাল কো-বরা সাপকে, তু-মুল ভাইরাল এই ভিডিও মুহূর্তে হইচই ফেললো সোশ্যাল মিডিয়ায়!

Advertisement আজকাল মানুষের মধ্যে সোশ্যাল মিডিয়ার জনপ্রিয়তা ব্যা-প-কভা-বে ছড়িয়ে পড়ছে। আট থেকে আশি সকল বয়সের …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!