মমতার পা ভেঙেও মন ভাঙেনি, একাই নৃ’শংস’তার বিরু’দ্ধে লড়ছেন: বললেন ধন্যি মেয়ে জয়া – OnlineCityNews
Breaking News
Home / ভারত / মমতার পা ভেঙেও মন ভাঙেনি, একাই নৃ’শংস’তার বিরু’দ্ধে লড়ছেন: বললেন ধন্যি মেয়ে জয়া

মমতার পা ভেঙেও মন ভাঙেনি, একাই নৃ’শংস’তার বিরু’দ্ধে লড়ছেন: বললেন ধন্যি মেয়ে জয়া

Advertisement

তৃণমূলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় প্রায় প্রতিটি জনসভাতেই বলছেন, ওরা গোটা কেন্দ্রীয় সরকার নিয়ে নেমছে। শুধুমাত্র একজন মহিলাকে হারাবে বলে। প্রধানমন্ত্রী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, কেন্দ্রের সব মন্ত্রীরা বাংলায় চলে এসেছেন।

ওরা এক দিকে, আর অন্য দিকে আমি একা। দেখি কারা জেতে। বাংলার ভোটে তৃণমূলের হয়ে প্রচারে এসে সমাজবাদী পার্টির রাজ্যসভার সাংসদ তথা অভিতাভ বচ্চনের স্ত্রী জয়া বচ্চন এসেও সেই কথাটাই তুলে ধরতে চাইলেন।

গতকাল রাতে শঙ্খ-উলুধ্বনির মাঝে কলকাতা বিমানবন্দরে পা রাখেন জয়া। এদিন তৃণমূল ভবনের সাংবাদিক বৈঠকে বিগ বি জায়া বলেন, “আমি মমতাজিকে শ্রদ্ধা করি। একা একজন মহিলা সমস্ত নৃশংতার বিরু’দ্ধে ল’ড়ছেন।

মাথা ফেটেছে, পা ভেঙেছে কিন্তু মন ভাঙতে পারেনি। মস্তিষ্ক নষ্ট করতে পারেনি।” তিনি আরও বলেন, “আমি বিশ্বাস করি, মমতা যেটা করতে চান, সেটা উনি সম্পূর্ণ করবেন। বাংলাকে বিশ্বের শ্রেষ্ঠ করবেন।”

তৃণমূল এবারের ভোটে বাংলা ও বাঙালিকেই বিজেপির বিরু’দ্ধে প্রধান অস্ত্র করেছে। জয়াও এদিন সাংবাদিক বৈঠকের শুরুতে তাঁর বাঙালিয়ানা তুলে ধরতে চাইলেন। বললেন, “আমি জয়া বচ্চন। আগে আমি ছিলাম জয়া ভাদুড়ি।

আমা’র বাবার নাম তরুণ কুমার ভাদুড়ি। আম'রা প্রবাসী বাঙালি।” সমাজবাদী পার্টির প্রধান অখিলেশ যাদবের নির্দেশেই তিনি বাংলায় প্রচারে এসেছেন বলে জানান জয়া। তিনি বলেন, “বাঙালিকে ভয় দেখিয়ে কেউ কখনও সফল হতে পারেনি।

কেউ আমা’র মধ্যে থেকে আমা’র ধর্মকে, আমা’র গণতান্ত্রিক অধিকারকে হাইজ্যাক করতে পারবে না।” বাংলাকে মেয়েদের জন্য দেশের মধ্যে নিরাপদতম রাজ্য বলেও উল্লেখ করেন জয়া। সেইসঙ্গে স্মরণ করিয়ে দিতে চান, সেই বাংলার গণতন্ত্র রক্ষায় একা একজন মহিলা লড়াই করছেন।

এ ব্যাপারে বিজেপির এক মুখপাত্র বলেন, “জয়া বচ্চন বিশিষ্ট মানুষ। উনি উচ্চমানের অভিনেত্রী। কিন্তু উনি যা বলেছেন তা পুরোটাই অন্যের লিখে দেওয়া। কারণ উনি জানেন না বা খবর রাখেন না, বাংলায় পঞ্চায়েত ভোটে ঠিক কেমন গণতন্ত্রের উৎসবটা হয়েছিল।

তিনি বোধহয় এটাও জানেন না, মহিলাদের জন্য নিরাপদ বাংলায় কামদুনি, গেঁদে, গাইঘাটা, মধ্যমগ্রাম বলে কতগুলো জায়গা রয়েছে। উনি এসেছেন ভাল কথা। কিন্তু অনেক দেরি করে ফেলেছেন।”

Advertisement
Advertisement

Check Also

গৃহহীন বৃ’দ্ধের ম`রদে’হ নিজে’র কাঁ`ধে তুলে ১ কিমি হাঁ`টলেন ম’হিলা পু`লি`শ ক’র্মী , দেশজুড়ে চলছে প্রশংসা

Advertisement মানুষ এখন দিনের বেশিরভাগ অবসর সময় টা সোশ্যাল মিডিয়াতে কা;টাতে ভালোবাসে। আর সোশ্যাল মিডিয়ায় …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!