Breaking News
Home / সারা দেশ / তিন তিনবার সতর্কবার্তা দেওয়ার পরেও পাত্তা দেননি পাইলট!

তিন তিনবার সতর্কবার্তা দেওয়ার পরেও পাত্তা দেননি পাইলট!

Advertisement

তিন তিনবার এয়ার ট্রাফিক কন্ট্রোলার থেকে সতর্ক করা হয়েছিল পাইলট’কে  বারবার বলা হয়েছিল উচ্চতার সঙ্গে বিমানের গতির সামঞ্জস্য রাখতে।

কিন্তু সেসবে নাকি পাত্তাই দেননি পাইলট। কথা না শুনে পাল্টা জবাবে তিনি বলেছিলেন, ‘সব ঠিক আছে। আমি সামলে নেব।’ আর পাইলটের এই অ’তিরিক্ত আত্মবিশ্বা’সের কারণেই জীবন দিতে হয়েছে ৯৭ যাত্রীকে।

করাচি বিমানবন্দরে নামা’র আগেই আছড়ে ভেঙে পড়ে পা’কিস্তান ইন্টারন্যাশনাল এয়ারলাইন্সের এয়ারবাস এ-৩২০। যাত্রী এবং ক্রু মেম্বার মিলিয়ে মোট ৯৯ জন ছিলেন বিমানে। মৃ’ত্যু হয়েছে ৯৭ জনের। ভাগ্যের জো’রে বেঁচে গিয়েছেন দু’জন। সোমবার ত’দন্তকারী কর্মক’র্তাদের দেওয়া এক রিপোর্টে এমনটাই জানা গেছে।

গত শুক্রবার লাহোর থেকে করাচির উদ্দেশে রওনা হয়েছিল পিকে-৮৩০৩ বিমানটি। করাচির জিন্না আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণের আগেই ঘটে দুর্ঘ’টনা। বিমানবন্দর থেকে প্লেন যখন ১৫ নটিক্যাল মাইল দূরে তখন প্রথম ওয়ার্নিং বা সতর্কবার্তা পাঠায় এয়ার ট্রাফিক কন্ট্রোলার বা এটিসি। ৭ হাজার ফুটের বদলে তখন প্লেন উড়ছিল ১০ হাজার ফুট উচ্চতায়।

দ্বিতীয়বার সতর্কবার্তা আসে যখন বিমানবন্দর থেকে প্লেনের দূরত্ব ১০ নটিক্যাল মাইল। সেসময় ৩ হাজার ফুটের বদলে বিমান উড়ছিল ৭ হাজার ফুট উচ্চতায়। তবে পরপর দুটো সতর্কবার্তার পরেও কোনো হেলদোল দেখাননি পাইলট।

অবতরণের ঠিক আগের মুহূর্তেও এটিসি থেকে ওয়ার্নিং পাঠানো হয় পাইলট’কে। জবাবে পাইলট জানান পরিস্থিতি নিয়ে তিনি চিন্তিত নন বরং সব সামলে ল্যান্ডিংয়ের জন্য প্রস্তুত তিনি। এরপরেই ঘটে সেই ভ’য়াবহ দুর্ঘ’টনা।

করাচির বিমান দুর্ঘ’টনা নিয়ে ত’দন্ত শুরু হয়েছে এরই মধ্যেই। সেই ত’দন্তের একটি রিপোর্টে বলা হয়েছে বিমানে আড়াই ঘণ্টারও বেশি সময় ধরে ওড়ার জন্য জ্বালানি ছিল। আর প্লেন উড়েছিল মাত্র দেড় ঘণ্টা। পাইলটের ভুল নাকি যান্ত্রিক গোলযোগ, ঠিক কী’ কারণে ওই বিমানটি ভেঙে পড়েছিল তা খতিয়ে দেখছেন ত’দন্তকারী কর্মক’র্তারা।

Advertisement
Advertisement

Check Also

স্ত্রীর ব্যাগে কলম খুঁজতে গিয়ে যা খুঁজে পেলেন স্বামী, তা দেখে হুঁশ উড়ে গেলো তার

Advertisement Advertisement একটি সম্পর্কের সবচেয়ে বড় ব্যাপার হল বিশ্বাস। বিশ্বাস না থাকলে কোন সম্পর্ক ভালো …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!