Breaking News
Home / করোনা নিউজ / এক মাসে যে কয়টা লা’শ দাফন ও সৎকার করলেন কাউন্সিলর

এক মাসে যে কয়টা লা’শ দাফন ও সৎকার করলেন কাউন্সিলর

Advertisement

নারায়ণগঞ্জে এক মাসে ৪৯টি লা’শের দাফন ও সৎকার করছেন সিটি করপোরেশন কাউন্সিলর মাকছুদুল আলম খন্দকার খোরশেদ। তাদের কেউ মা’রা গেছেন করো’নায় আ’ক্রান্ত হয়ে, কেউ আবার করো’না উপসর্গ নিয়ে। তাদের কেউই কাউন্সিলর খোরশেদের স্বজন নন। কিংবা তিনিও তাদের কেউ নন। অথচ ৪৯ লা’শের ভা’র নিলেন তিনি। মু’সলিম’দের দিলেন নামাজে জানাজা, হিন্দুদের করলেন সৎকার।

করো’নার এই দুর্যোগে নি’হতের স্বজনদের কেউ এগিয়ে আসেননি। বরং মুখ লুকিয়েছে। বাবার লা’শ ঘরের একরুমে আবদ্ধ রেখে খবর দিলেন কাউন্সিলরকে। প্রা’ণের ভ’য়ে স্বজনরা যেখানে এগিয়ে আসেননি। সেখানে মৃ’ত্যুভ’য়কে উপেক্ষা করে এগিয়ে এসেছেন এ জনপ্রতিনিধি। তার আরেকটা পরিচয় আছে, তিনি নারায়ণগঞ্জ মহানগর যুবদলের সভাপতি।

কাউন্সিলর খোরশেদের মহানুভবতায় মুগ্ধ নারায়ণগঞ্জের মানুষ। এ ক্রান্তিকালে তার জীবনবাজি রাখা সামাজিক কর্মকা’ণ্ডের খবর দেশে-বিদেশের মিডিয়ায় আ’লোচিত। নারায়ণগঞ্জের মানুষ তাকে উপাধি দিয়েছে ‘করো’না হিরো’।

যেখানে বিপদ সেখানেই খোরশেদ। যেখানে লা’শ সেখানেই তাকে দেয়া হয় খবর। কোনো কিছু চিন্তা না করে ছুটে যান তিনি। এ জন্য তিনি তৈরি করেছেন স্বেচ্ছাসেবী দল। তারা বিনামূল্যে দিচ্ছে মানুষের সেবা। গত ৮ এপ্রিল করো’না সা’সপেক্ট আফতাব উদ্দিনের লা’শের দাফন থেকে শুরু করে গতকাল বুধবার আমলাপাড়া এলাকার মৃ’ত শাহীনের দাফনের মাধ্যমে ৪৯ লা’শের দাফন ও সৎকার করেন খোরশেদ টিম।

নয়া দিগন্তকে খোরশেদ জানান, ২০ মে পর্যন্ত আম’রা ৪৯ জনকে দাফন ও সৎকার করেছি। সম্ভবত করো’নার নতুন রূপের শিকার হলেন আমলাপাড়া নিবাসী মো: শাহিন। তিনি গত চার দিন জ্বরে ভুগছিলেন। মঙ্গলবার ১২টার দিকে তার শ্বা’সক’ষ্ট শুরু হয় এবং অ’জ্ঞান হয়ে যান।

পরিবারের লোকজন তাকে ভিক্টোরিয়া হাসপাতা’লে নিলে চিকিৎসক জানান তিনি হাসপাতা’লে নেয়ার আগেই মা’রা গেছেন। পরিবারের আহ্বানে বুধবার সকাল ৯টায় আম’রা শাহিন ভাইয়ের গোসল নামাজে জানাজা ও দাফন সম্পন্ন করেছি। গোসল করান আমা’দের সহযোদ্ধা হাফেজ শি’ব্বির আহমেদ, নামাজে জানাজা পড়ান কবরস্থান ম’সজিদের ই’মাম মা’ওলানা বদর শাহ। টিমে ছিলেন হিরা, হাফেজ শি’ব্বির, আনোয়ার, সুমন, রাফি, লিটন মিয়া।

জানা যায়, বাংলাদেশে প্রথমবারের মতো গত ৮ মা’র্চ নারায়ণগঞ্জে দু’জন করো’না পজিটিভ শনাক্ত হওয়ার দিন থেকেই টিম খোরশেদ প্রত্যক্ষভাবে করো’না প্রতিরোধে কাজ শুরু করে। ৯ মা’র্চ ২০ হাজার লিফলেট ও মাস্ক নারায়ণগঞ্জ মহানগরীতে বিতরণ শুরু করেন ও স্থানীয় পত্রিকায় বিজ্ঞাপন প্রকাশ করে মানুষের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন। টিম লিডার খোরশেদ জুমা’র নামাজে সচেতনতা বৃদ্ধির জন্য বক্তব্য রাখেন। সচেতনতামূলক কার্যক্রম চলাকালীন ১৮ মা’র্চ বাংলাদেশে প্রথম করো’নায় একজনের মৃ’ত্যু ঘটে।

ফলে সারা দেশের মতো নারায়ণগঞ্জেও করো’নাভীতি ছড়িয়ে পড়লে বাজারে স্যানিটাইজারের চাহিদা বাড়ায় এক দিনেই সঙ্কট সৃষ্টি হওয়ায় টিম খোরশেদ ১৯ মা’র্চ থেকে বিদ্যানন্দ ফাউন্ডেশন ও বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার ফর্মুলা অনুযায়ী স্যানিটাইজার বানানো শুরু করে। ২৮ মা’র্চ ৫০ এমএলের ৬০ হাজার বোতল স্যানিটাইজার ও ১০ হাজার বোতল ২৫০ এলএলের লিকুইড হ্যান্ড ওয়াস সোপ তৈরি ও বিতরণ করে।

এ সময় প্রায় ৮০টি প্রতিষ্ঠান ও ব্যক্তি টিম খোরশেদের কাছ থেকে ফর্মুলা নিয়ে সারা জে’লায় কমপক্ষে ৩ লাখ স্যানিটাইজার তৈরি করে বিতরণ করে। করো’নায় মৃ’ত্যুর সংখ্যা বাড়তে শুরু করলে লা’শের দাফন ও সৎকার নিয়ে অমানবিক অবস্থার সৃষ্টি হয়।

আত্মীয়স্বজন, বন্ধু, প্রতিবেশীরা, এমনকি পরিবারের লোকজনও যখন লা’শ সৎকার ও দাফনে অনীহা জানাতে শুরু করে তখন ৩০ মা’র্চ টিম খোরশেদ নারায়ণগঞ্জের জে’লা প্রশাসক, নাসিক মেয়র ও সিভিল সার্জনের কাছে আবেদন করে তারা করো’নায় মা’রা যাওয়াদের লা’শ গোসল, জানাজা, দাফন ও সৎকার করতে ইচ্ছা প্রকাশ করে। ৭ এপ্রিল টিম খোরশেদ নারায়ণগঞ্জে করো’না পরীক্ষার জন্য ল্যাব স্থাপনের আবেদন জানান।

৮ এপ্রিল প্রথম করো’না সা’সপেক্ট আফতাবউদ্দিনের দাফনের মাধ্যমে শুরু করে ২০ মে পর্যন্ত ৪৯ জনকে দাফন ও সৎকার করেছেন। এর মধ্যে ১৬ জন কোভিড পজেটিভ, ১৯ জন সা’সপেক্ট ও ৭ জন ছিল স্বাভাবিকভাবে মৃ’ত্যুবরণকারীর লা’শ দাফন ও সৎকার করে। গত ১৪ মে থেকে টিম খোরশেদ ও টাইম টু গিভের যৌথ উদ্যোগে করো’নার শুরুতে চালু হওয়া ‘টিম খোরশেদ টেলি মেডিসিন’ সেবার একমাস পূর্ণ হয়েছে।

গত ১৩ এপ্রিল ৫ জন মানবিক চিকিৎসককে নিয়ে শুরু হওয়া টিমের সদস্য সংখ্যা এখন ১০ জন। গত ৩০ দিন মানবিক চিকিৎসকবৃন্দ বিনামূল্যে প্রায় ৬৫১৯ জনকে চিকিৎসা’সেবা দিয়েছেন।

এ ছাড়া ১০ হাজার মানুষকে বিনামূল্যে সবজি বিতরণ, যারা সহায়তা নিতে চান না তাদের জন্য ২১ রমজান থেকে শুরু করে ২৮ রমজান পর্যন্ত প্রায় ১৭০০ প্যাকেট ঈদসামগ্রী ভতুর্কি মূল্যে বিক্রয় করার উদ্যোগ নেন তারা। এ ছাড়া অসহায় দরিদ্রদের জন্য সরকারি ত্রাণের সুষ্ঠু বিতরণের পাশাপাশি ব্যক্তিগত উদ্যোগে খাদ্যসমাগ্রী নিয়ে মানুষের পাশে দাঁড়ান কাউন্সিলর খোরশেদ।

Advertisement
Advertisement

Check Also

দেশে করোনার আরো নতুন ৫ উপসর্গ, জানুন সেগুলো কি কি?

Advertisement Advertisement আনিস সাহেব (ছ’ন্দ নাম) অফিস থেকে ফি’রেই ক্লা’ন্তি বো’ধ কর’ছিলেন। অফিস থেকে ‘ফিরলে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!